×

মেলা

সংসদ ও দিদি নাম্বার ওয়ান দুটোই সামলাবেন রচনা

Icon

প্রকাশ: ০৮ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

সংসদ ও দিদি নাম্বার ওয়ান দুটোই সামলাবেন রচনা

রাজনীতির ময়দানে এসে প্রথমবারই জয়ী রচনা বন্দ্যোপাধ্যায়। অষ্টাদশ লোকসভা নির্বাচনের হুগলি লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূলের প্রার্থী হয়ে দাঁড়ান রচনা। প্রায় ৩ মাস ধরে লাগাতার প্রচার। গোটা প্রচারেই বিতর্ক। কখনো ‘ধোঁয়া’ দেখেছেন, কখনো সিঙ্গুরের দই খেয়ে সেখানকার গরুর প্রশংসায় পঞ্চমুখ। সমাজমাধ্যমজুড়ে তাকে নিয়ে মিমের বন্যা। জেতার পর সেই মিম প্রস্তুতকারকদেরই ধন্যবাদ জানালেন তিনি। আগামী পরিকল্পনা কী? জয়ের নেপথ্যে স্বামী প্রবাল বসুর ভূমিকা কতখানি? সেই সঙ্গে ‘দিদি নাম্বার ওয়ান’ শোয়ের ভবিষ্যৎ নিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যমের কাছে অকপট রচনা। জেতার ঘোর এখনো কাটেনি। জয়ের পরের দিনটা কেমন লাগছে? ‘ভালো লাগছে, সব থেকে ভালো লাগছে তৃণমূলের এই জয়।’

নির্বাচনে তার প্রতিদ্ব›দ্বী ছিলেন লকেট চট্টোপাধ্যায়। এক সময়ের সহকর্মী। তাকে হারিয়েছেন। তবে নিজে জিতে অন্যকে খাটো করায় বিশ্বাসী নন রচনা। বরং আগামী পাঁচ বছর হুগলির জন্য একগুচ্ছ পরিকল্পনা রয়েছে তার। যারা বিশ্বাস করে ভোট দিয়েছেন, তাদের পাশে থাকতে অঙ্গীকারবদ্ধ তিনি। অবশ্য এই মুহূর্তে কলকাতায় ফিরে আগে ছেলের সঙ্গে কয়েকটা দিন সময় কাটাবেন। রচনা বলেন, গত কয়েক মাসে একদম সময় দিতে পারিনি ছেলেকে। জেতার পর আমাকে বলেছে, ‘মা, আমাকে এবার সময় দেবে’। ওকে নিয়ে ঘুরতে যাব আগে। তবে রচনা নিজেও জানেন, গোটা প্রচার পর্বে তাকে নিয়ে তৈরি হয়েছে ঢালাও মিম। চলছে ঠাট্টা ও রসিকতা। জেতার পর রচনা বললেন, আমি তো তাদের দোষ দিচ্ছি না। তাদের রুজি-রোজগারের জায়গা। এই মিমের কারণে যে প্রচারটা পেয়েছি, তা আমার পক্ষেই গিয়েছে। কারণ যে কোনো ধরনের প্রচারই কিন্তু আসলে প্রচার। ওরা আমাকে যে হাইপটা দিয়েছেন, তাতে সারা পৃথিবীর লোক জেনে গিয়েছে কে রচনা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জেতার পর যদিও তাকে নিয়ে নতুন মিম প্রস্তুত। সংসদে রচনা ‘এবার বলো’ বললেই নাকি কথা বলবেন সবাই! যদিও গোটাটা শুনে অট্টহাসি অভিনেত্রীর। তার কথায়, ‘এর মধ্যেই নতুন মিম তৈরি হয়ে গেল। বাবা! আমি কিন্তু এদের প্রতিভা ও সৃজনশীলতাকে কুর্নিশ জানাই।’ তবে তার প্রতিপক্ষ লকেট বিজেপির এক বারের জেতা সাংসদ। তাই প্রথম থেকেই নিজের দুই বিশ্বস্ত সৈনিককে নিয়ে ময়দানে নেমেছিলেন বলেই জানালেন অভিনেত্রী। রচনার কথায়, ‘আমার এই জয়ের কৃতিত্ব দেব প্রবালকে (অভিনেত্রীর স্বামী) ও অশেষ পালকে (অভিনেত্রীর দাদা)। এই দুজন অক্লান্ত পরিশ্রম করেছে।’ সাংসদ হিসেবে নতুন দায়িত্ব নিতে হচ্ছে। তবে কি ‘দিদি নাম্বার ওয়ান’ শোয়ের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত? খানিক অভয় দিয়ে রচনা জানালেন, কোনো দিকেই অসুবিধা হবে না। দুদিকের দায়িত্বই পালন করবেন তিনি। হয়তো তার কষ্ট হবে, কিন্তু তিনি করতে পারবেন নিশ্চিত।

- মেলা ডেস্ক

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App