×

এই জনপদ

সিরাজদিখান

শিশুকে অমানুষিক নির্যাতন হোটেল মালিকের

Icon

প্রকাশ: ০৫ জুলাই ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি : হাত থেকে প্লেট পড়ে যাওয়ায় শিশুকে অমানুসিক নির্যাতন করেছেন এক হোটেল মালিক। হাত-পা ও পায়ুপথে ছ্যাঁকার মতো নির্যাতনের শিকার ৭ বছরের শিশুটি এখন ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার মধুপুর গ্রামের শিশু ইয়াসিনকে দাদার কাছে রেখে অন্য জায়গায় চলে গেছেন পিতা বাবা-মা। অভাবের সংসার হওয়ায় ৩ মাস আগে পার্শ^বর্তী রাজানগর বাজারে সামান্য বেতনে মিন্টুর হোটেলে কাজ নেয় শিশুটি। সেখানে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে হোটেল মালিক মিন্টু তাকে প্রায় সময়ই মারধর করত।

নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ জানায়, ২৫ জুন ইয়াসিন হোটেলে কাজ করার সময় হাত থেকে একটি প্লেট পড়ে যায়। এজন্য শিশুটিকে হাত-পায় ও পায়ুপথে গরম ছ্যাঁকা দিয়ে দেন মিন্টু। এছাড়া দুই দিন দড়ি দিয়ে বেধে রাখা হয়। স্থানীয় এক মহিলা তাকে উদ্ধার করে নবাবগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে দেন।

ইয়াসিনের দাদা আব্দুস সাত্তার বলেন, বাবা-মা শিশুটিকে ফেলে চলে যায় অনেক দিন আগে। আমি ওকে লালনপালন করি। বাজারে সবজি বিক্রি করে কোনো মতে সংসার চলে আমার। তাই নাতিকে মিন্টুর কাছে দিয়েছিলাম কাজে।

শিশু ইয়াছিন বলে, মাঝেমধ্যেই মারধর করত হোটেল মালিক। ওই দিন হাত থেকা প্লেট পড়ে গেলে লোহার রড গরম করে শরীর, হাত-পায়ে ছ্যাঁকা দেয়।

নবাবগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ডা. শহীদুল ইসলাম গত বুধবার গণমাধ্যমকর্মীদের ইয়াসিনের বিষয় অবগত করে বলেন, বিষয়টি পুলিশকে জানিয়েছি। শিশুটির শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারাত্মক জখম রয়েছে। হাত-পা ও পায়ুপথে গরম ছ্যাঁক দেয়া হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। নবাবগঞ্জ থানার ওসি শাহ জালাল বলেন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি জানিয়েছে। ঘটনাস্থল সিরাজদিখান থানায়।

সিরাজদিখান থানার ওসি মুজাহিদুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে খোঁজ নিয়ে দ্রুত অপরাধীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App