×

এই জনপদ

সাটুরিয়ায় বেড়েছে চুরি

Icon

প্রকাশ: ০৪ জুলাই ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

সাটুরিয়া (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি : সাটুরিয়া উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে বেড়েছে চুরি। গত ২৬ জুন তিল্লি ইউনিয়নের দুই বাড়ি থেকে ৭টি ও বালিয়াটি ইউনিয়নের এক বাড়ি থেকে ২টি গরু চুরির ঘটনা ঘটেছে। এ বিষয়ে দায়িত্বে অবহেলার কারণে গত সোমবার রাতে সাটুরিয়া থানার দুই এসআই এবং দুই পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করে মানিকগঞ্জ পুলিশ লাইনসে সংযুক্ত করা হয়েছে।

এদিকে প্রধান শিক্ষকের এবং সাটুরিয়া বাসস্ট্যান্ড থেকে মোটরসাইকেল চুরির ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় পুলিশের দায়িত্বে অবহেলাকেই দায়ী করছেন সাটুরিয়াবাসী।

জানা যায়, সাটুরিয়া উপজেলার তিল্লি ইউয়িনের উত্তর পার তিল্লি গ্রামে ২৬ জুন রাতে ওই এলাকার মৃত রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে নিফাজ উদ্দিনের টিনের ঘর থেকে ৪টি গরু চুরি করে নিয়ে যায় চোররা। একই রাতে একই গ্রামের রহিম উদ্দিনের বাড়ি থেকে ৩টি গরু চুরি যায়। এ ঘটনায় ২৮ জুন নিফাজ উদ্দিন থানায় বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

গত ২৮ জুন উপজেলার বালিয়াটি ইউনিয়নের গোপালনগর গ্রামের আলতাফ আলীর বাড়ি থেকে ২টি গরু চুরি হয়। আলতাফ আলীর ছেলে হালিম বলেন, আমাদের ২টি গরুর মধ্যে একটি বাছুর আরেকটি বকনা গরু, যার মূল্য প্রায় ৪ লাখ টাকা। গত ২৮ জুন চুরির যাওয়ার পর পর সাটুরিয়া থানা থেকে পুলিশ আসে, বিভিন্ন জিজ্ঞাসাবাদ করে গেছে। এরপর ৪ দিন পার হলেও আমাদের বাড়িতে থানা থেকে কেউ আসেনি। এদিকে ধানকোড়া গিরীশ ইনস্টিটিউশনের প্রধান শিক্ষক আবুল বাশার বলেন, এক মাস আগে আমার গ্রামের বাড়ি নয়াডিঙ্গি থেকে একটি মোটরসাইকেল চুরি হয়। এর কয়েকদিন আগে আমার গ্রাম থেকে ২টি এবং সাহেব পাড়া থেকে আরেকটি মোটরসাইকেল চুরি যায়। এ ঘটনায় দুজনকে আটক করে পুলিশে দিই। মামলা করলে আসামি দুজন জামিনে চলে আসে। সাটুরিয়া থানার ওসি মো. মাহবুব আলম বলেন, ৯টি চুরি হওয়া গরু উদ্ধার করার জন্য চেষ্টা করছি। আশা করছি খুব দ্রুত আসামিদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতে পারব।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App