×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

এই জনপদ

গজারিয়া

যুবককে তুলে নিয়ে হাত-পা ভেঙে দিল সন্ত্রাসীরা

Icon

প্রকাশ: ২৯ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

গজারিয়া (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি : গজারিয়ায় শাহাদাত হোসেন (৩৬) নামে এক যুবককে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে এক হাত ও এক পা ভেঙে দিয়েছে প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসীরা। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার গুয়াগাছিয়া ইউনিয়নের গুয়াগাছিয়া গ্রামের বাড়ি থেকে ওই যুবককে তুলে নিয়ে পার্শ্ববর্তী চাঁদপুরের মতলব উপজেলার বেলতলী লঞ্চঘাট এলাকায় মারধর করে ফেলে রেখে যায়।

ওই দিন রাত সাড়ে ১১টার দিকে আহত অবস্থায় স্বজনরা উদ্ধার করে প্রথমে গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে শাহাদাতকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে রেফার্ড করেন। আহত শাহাদাত হোসেন গুয়াগাছিয়া গ্রামের মৃত্যু আবদুল মজিদ সৈয়ালের ছেলে।

স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাড়িতে শুয়ে ছিলেন শাহাদাত হোসেন।

এ সময় একই ইউনিয়নের জামালপুর গ্রামের নয়ন, রিপন, পিয়াসসহ ১৫ থেকে ২০ জন সন্ত্রাসী অস্ত্র ঠেকিয়ে বাড়ি থেকে ইঞ্জিনচালিত ট্রলারে করে তুলে নিয়ে যায় বেলতলী। সেখানে নিয়ে রড দিয়ে পিটিয়ে তার এক হাত ও এক পা ভেঙে দিয়ে ফেলে রেখে চলে যায়। পরে খবর পেয়ে স্বজনরা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে রেফার্ড করেন।

আহত শাহাদাত হোসেন বলেন, সন্ধায় আমি বাড়িতে ছিলাম। জামালপুর গ্রামের মাহমুদ আলীর ছেলে পিয়াস, তোফায়েল হোসেনের ছেলে শ্রাবণ ও খালেক মিয়ার ছেলে জামানসহ পাঁচ থেকে ছয়জন সন্ত্রাসী আমাকে তুলে নিয়ে যায় বেলতলী এলাকায়। সেখানে নিয়ে আমাকে এলোপাতাড়ি মারধর করে তারা। এ সময় ওদুদ নামে সন্ত্রাসী পিস্তল ঠেকিয়ে আমার ছোট ভাই উজ্জ্বলকে তাদের হাতে তুলে দিলে আমাকে ছেড়ে দেয়ার কথা বলে। এ সময় তারা আমার হাতে দুটি পিস্তল দিয়ে ভিডিও করে স্বীকারোক্তি নেয় এবং একটি স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেয়। আমি তাদের এখানে ডাকাতি করতে এসেছি।

আহত শাহাদাতের ভাই উজ্জ্বল সৈয়াল বলেন, তার ভাইয়ের অবস্থা খুবই খারাপ। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তার এক হাত ও এক পা ভেঙে গেছে। গজারিয়া থানার ওসি মো. রাজিব খাঁন বলেন, খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পুলিশ। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় কেউ কোনো অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App