×

এই জনপদ

জমে উঠেছে মেহেরপুরের শতবর্ষী ছাগলের হাট

Icon

প্রকাশ: ১৩ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

জমে উঠেছে মেহেরপুরের  শতবর্ষী ছাগলের হাট

মর্তুজা ফারুক রুপক, মেহেরপুর থেকে : কুরবানি ঈদের আর বেশি দেরি নেই। আগামী ১৭ জুন (সোমবার) অনুষ্ঠিত হবে কুরবানির ঈদ। আর কুরবানি ঈদকে সামনে রেখে জমে উঠেছে মেহেরপুরের শতবর্ষী ছাগলের হাট। বিশ্বখ্যাত ব্ল্যাকবেঙ্গল জাতের ছাগলের খোঁজে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ব্যবসায়ীরা আসছেন সদর উপজেলার বারাদী ছাগল হাটে। শতবর্ষী এই হাটে সপ্তাহের শনিবার ও বুধবারে হাজার হাজার খামারিরা আসেন তাদের ছাগল বিক্রি করতে। শুধু ব্ল্যাকবেঙ্গল না, রামছাগল বা যমুনাপারি ছাগল, বিটল ছাগলসহ বিভিন্ন জাতের ছাগলও বিক্রি হচ্ছে হাটে। তবে চাহিদা বেশি ২৫-৩০ কেজি ওজনে ব্ল্যাকবেঙ্গল ছাগলের।

জেলা প্রাণিসম্পদ অফিস সূত্রে জানা গেছে, জেলায় কুরবানিযোগ্য ছাগলের চাহিদা ৫০ হাজারের কিছু বেশি। তবে কুরবানির ছাগল প্রস্তুত করা হয়েছে প্রায় ১ লাখ ৩০ হাজার।

উদ্বৃত্ত ছাগলগুলো তোলা হচ্ছে হাটে, যা কিনতে আসছেন দেশের বিভিন্ন প্রান্তের ব্যবসায়ীরা। ঈদের বেশি বাকি না থাকায় দিন দিন বাড়ছে ছাগলের চাহিদা। এ কারণে ব্যবসায়ীরা ছাড়াও সাধারণ ক্রেতারাও আসছেন পশু কিনতে। তবে দাম নাগালের বাইরে বলে অভিযোগ করছেন ক্রেতারা। গতকাল বুধবার সপ্তাহের শেষ হাটে গিয়ে দেখা যায়, ঢাকা, খুলনা, বরিশালসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ব্যবসায়ীরা এসেছেন। কালো ও লালচে রঙের ছাগলের চাহিদা বেশি। ১২ হাজার থেকে শুরু করে ৮০ হাজার টাকা মূল্যের ছাগল পাওয়া যাচ্ছে এই হাটে। মাঝারি ধরনের ছাগলের ক্রেতা বেশি থাকে বলে এসব ছাগলের দাম একটু বেশি।

বড় ও দৃষ্টিনন্দন ছাগলের ক্রেতাও রয়েছে বেশ। ঢাকা থেকে আগত ব্যবসায়ী বেলাল হোসেন জানান, কুরবানির সময় এই হাটে প্রচুর ছাগল আমদানি হয়। আমরাও এখানে আসি ছাগল কিনতে। এখানে সারা বছরই ছাগল পাওয়া যায়। তবে ঈদের আগে ভালো মানের ছাগলের সমারোহ থাকে। স্থানীয়রাও কুরবানির জন্য ছাগল কিনতে আসে এখানে।

জিয়াউর রহমান নামের এক ক্রেতা বলেন, হাটে পর্যাপ্ত ছাগল থাকায় নিজেদের পছন্দমতো ছাগল কিনতে পারছি। তবে গত বছরের তুলনায় দাম অনেক বেশি। ১৮-২০ কেজির ছাগলের দাম হাঁকানো হচ্ছে ২২-২৪ হাজার, যা গত বছরের তুলায় অনেক বেশি। ছাগল বিক্রি করতে আসা আসাদুল ইসলাম বলেন, আমার বাড়িতে ৫টি ছাগল ছিল। এর মধ্যে ২টি ছাগল বিক্রি করেছি। দুটির দাম রেখেছি ৩৮ হাজার টাকা।

বারাদী ছাগল হাটের ইজারাদার ইসরাফিল হোসেন বলেন, প্রতি সপ্তাহে শনিবার ও বুধবার হাট বসে। দুটি হাটে প্রায় ৫-৬ কোটি টাকার লেনদেন হয়। প্রতি হাটে প্রায় ৩ হাজার ছাগলের আমদানি হয়। বেশির ভাগই বিক্রি হয়ে যায়।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App