×

এই জনপদ

জমে উঠছে কুরবানির হাট

চাঁদপুরে চাহিদার তুলনায় পশু সংকট ১৭ হাজার

Icon

প্রকাশ: ১২ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

চাঁদপুরে চাহিদার তুলনায়  পশু সংকট ১৭ হাজার

ল²ণ চন্দ্র সূত্রধর, চাঁদপুর থেকে : আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে ইতোমধ্যে কুরবানির পশুর হাট জমে উঠতে শুরু করেছে চাঁদুপরে। তবে জেলায় এ বছর চাহিদার তুলনায় প্রায় ১৭ হাজার কুরবানি পশুর সংকট রয়েছে। জেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর বলছে, সংকট নিরসনে অন্য জেলা থেকে পশু আমদানি করা হবে। জেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর থেকে জানা গেছে, জেলায় খামারি আছেন ৩ হাজার ২৬৯ জন। এসব খামারি ও ব্যক্তি উদ্যোগে গরু, মহিষ, ছাগল ও ভেড়া পালন করে কুরবানির জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। জেলায় মোট গবাদি পশুর সংখ্যা ৬১ হাজার ৪৮৯। তবে কুরবানির জন্য ৭৮ হাজার পশুর চাহিদা রয়েছে।

জেলা সদরের বাগাদী ইউনিয়নের নানুপুর গ্রামের খামারি খালেদ মুন্সি বলেন, আমি প্রতি বছরই কুরবানিতে বিক্রির জন্য ২৫ থেকে ৩০টি গরু পালন করি। এ বছর প্রায় ৩০টি ষাঁড় বিক্রির জন্য প্রস্তুত আছে। তবে এ বছর খাবারের দাম বেড়ে যাওয়ায় আমাদের খরচ বেড়েছে। আমার খামারে ৮০ হাজার থেকে শুরু করে ২ লাখ টাকা দামের ষাঁড় আছে। আহমদ উল্লাহ নামে অপর এক খামারির খামারে আছে শতাধিক গরু। তবে এর মধ্যে কুরবানির উপলক্ষে বিক্রির জন্য প্রায় অর্ধশত ষাঁড় প্রস্তুত করা হয়েছে। খামারের শ্রমিকরা জানান, দেশি জাতের ষাঁড়ের চাহিদা বেশি। জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে কুরবানির আগে লোকজন গরু কিনতে আসেন। তবে এখনো বেচাবিক্রি শুরু হয়নি। তারা ঘাসসহ দানাদার খাবার দিয়ে এসব গরু পালন করেছেন। নানুপুর গ্রামের ব্যবসায়ী বাবু আলম বলেন, আমরা সব সময় কুরবানির জন্য দেশি জাতের ভালো গরু কেনার চেষ্টা করি। অনেকে ব্যস্ততার কারণে বাড়িতে কিংবা খামারেই গরু কিনতে পছন্দ করেন। কয়েকটি খামার ঘুরে দরদাম করে দেখলাম গত বছরের তুলনায় গরুর দাম কিছুটা বেশি।

জেলার অন্যতম পশুর হাট সদরের সফরমালি ও হাজীগঞ্জ উপজেলার বাকিলা ঘুরে দেখা গেছে, হাটে প্রচুর পরিমাণ কুরবানির পশু এসেছে। ক্রেতারা এখন শুধু দরদাম করছেন। তবে এ সপ্তাহের শেষ দিকে হাটগুলোতে বেচাকেনা বাড়বে।

কুরবানির পশুর হাট বসে জেলা সদরের ইচলী চৌরাস্তায়। এই হাটের ইজারাদার জাকির হোসেন খান বলেন, গত ১০ জুন থেকে এই হাটে কুরবানির পশু বিক্রি শুরু হবে। যোগাযোগব্যবস্থা ভালো থাকায় ফরিদপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে এখানে কুরবানির পশু নিয়ে আসবেন ব্যাপারীরা। আবার প্রতি বছরই এই হাট থেকে পশু যায় পার্শ্ববর্তী জেলা ল²ীপুর ও নোয়াখালীতে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App