×

এই জনপদ

নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা

শাহজাদপুরে মেয়রের ছেলেকে মারধরের প্রতিবাদে মানববন্ধন

Icon

প্রকাশ: ০২ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

 শাহজাদপুরে মেয়রের  ছেলেকে মারধরের  প্রতিবাদে মানববন্ধন

আব্দুল কুদ্দুস, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন পরবর্তী আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে শাহজাদপুর পৌরসভার সাবেক মেয়রের ছেলে সবুজ ইসলামকে মারধরের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে দ্বারিয়াপুর মহল্লাবাসী।

গতকাল শনিবার বেলা ১১টার দিকে দ্বারিয়াপুর বাজারের ফলপট্টিতে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে কয়েকশ নারীপুরুষ অংশ নেন।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, শাহজাদপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র নজরুল ইসলাম, রিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক বেল্লাল প্রামাণিক, শাহজাদপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি রিমন হোসেন, আসমা খাতুন, রোমানা খাতুন প্রমুখ।

এ সময় মারধরে আহত সবুজ ইসলামের বাবা সাবেক পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম বলেন, নির্বাচনের পরেরদিন রাতে তার ছেলে সবুজ রুটি খাওয়ার জন্য দিলরুবা বাসস্ট্যান্ডে গেলে ভিপি রহিম ও শেখ কাজলের নেতৃত্বে হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে। মূলত নির্বাচনে শেখ কাজলের ভাই জিতে যাওয়ায় তারা আধিপত্য বিস্তার করার জন্যই এ হামলা চালিয়েছে বলেও অভিযোগ করেন সাবেক এই পৌর মেয়র।মানববন্ধনে বক্তারা হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তারসহ শাস্তি দাবি করেন। এদিকে অভিযোগ অস্বীকার করে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবে সোবহান শেখ কাজল বলেন, ঘটনার সময় তিনি মনিরামপুর বাজারে তার ব্যক্তিগত কার্যালয়ে অবস্থান করছিলেন। তিনি আরো জানান, ঘটনার দিন সবুজ তার বাহিনী নিয়ে দেশীয় অস্ত্রের মহড়া দেয়। ওইদিন রাতেই মদ্যপ অবস্থায় কান্দাপাড়া দিলরুবা বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে সবুজ এক সিনিয়র আওয়ামী লীগ নেতাকে গালাগাল করার সময় স্থানীয়রা তাকে মারধর করে।

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য ভিপি আব্দুর রহিমের সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, সবুজ ইসলাম বিএনপি কর্মী। সে ট্রেন পোড়ানো মামলার আসামি। গা বাঁচাতে সদ্য আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে আওয়ামী লীগের নেতাদেরকেই সে নির্যাতন করছে। ঘটনার দিন সে মদ পান করে দিলরুবা বাসস্ট্যান্ডে এসে সিনিয়র আওয়ামী লীগ নেতা মহিউদ্দিনকে গালাগাল করছিল।

এ সময় এলাকার লোকজন তাকে পিটুনি দিলে আমি তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে পাঠিয়ে দেই।

উল্লেখ্য, ২৯ মে শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার পরদিন শুক্রবার দুপুরে পরাজিত প্রার্থী মারুফ হোসেন সুনামের অনুসারীরা দেশীয় অস্ত্রের মহড়া দেয়। এ ঘটনায় শাহজাদপুর থানা পুলিশ বাদী হয়ে অস্ত্রধারীদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে। ওইদিন রাতেই সাবেক মেয়র নজরুল ইসলামের ছেলে সবুজ মারধরের শিকার হন।

এ ঘটনায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবে ওয়াহিদ শেখ কাজল ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য ভিপি আব্দুর রহিমসহ ১৬ জনের নাম উল্লেখ করে সাবেক পৌর মেয়র নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে শাহজাদপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App