×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

এই জনপদ

শ্রীপুর

ঝুট ব্যবসার দ্ব›েদ্ব কলেজছাত্র খুন

Icon

প্রকাশ: ২৩ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

নাসির উদ্দিন জর্জ, শ্রীপুর (গাজীপুর) থেকে : শ্রীপুরে ঝুট ব্যবসা নিয়ে বিরোধের জেরে হামলায় কলেজছাত্র ফরিদ আহম্মেদ (১৯) নিহত হয়েছন। গত মঙ্গলবার রাত ৮টায় শ্রীপুর পৌরসভার মাওনা (মাটির মসজিদ) এ এস আর কারখানার সামনে এ হামলার ঘটনা ঘটে। আহত অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক রাত পৌনে ১০টায় তাকে মৃত ঘোষণা করে। ফরিদ শ্রীপুর মুক্তিযোদ্ধা রহমত আলী সরকারি কলেজের সম্মান দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি শ্রীপুর পৌরসভার উজিলাব গ্রামের মোস্তফার ছেলে।

নিহত ফরিদের চাচা জলিল মাস্টার বলেন, ঝুট ব্যবসা নিয়ে বিরোধের জেরে এ ঘটনা ঘটেছে। বিকালে ফরিদের কয়েকজন বন্ধু তাদের বাড়িতে বেড়াতে আসে। সন্ধ্যার পর তাদের এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার সময় ওই এলাকার মামুন ফকিরসহ স্থানীয় কয়েকজন তাকে ধাওয়া করলে দৌড় দিতে গিয়ে ফরিদ পড়ে যায়। এ সময় মামুন ফকির তার সঙ্গে থাকা শাকিব, মারুফ, মাহফুজ, তার বাবা আতাউল্লাহ, শামীম, আকাশসহ ২০-৩০ জনকে নির্দেশ দেয় তাকে মেরে ফেলার জন্য। এ সময় তারা ফরিদকে এলোপাথাড়ি মারতে থাকে। পরে আতাউর রহমানের ছেলে শাকিব ফরিদকে গুলি করে। শাকিব গত দুদিন আগে জেল থেকে বের হয়ে এলাকায় আসে। সে মামুন ফকিরের লোক।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক নাজমুল হুদা বলেন, নিহত ফরিদ আহম্মেদের বাম চোখের বাম কর্নারে মারাতœক আঘাতের চিহ্ন এবং বাম কাঁধে গুলির মতো ছিদ্র রয়েছে। তবে এটি গুলির ছিদ্র কিনা তা তিনি নিশ্চিত করতে পারেননি। শ্রীপুর থানার ওসি আকবর আলী খান বলেন, খবর পেয়ে কালিয়াকৈর সার্কেলের সিনিয়র এএসপি আজমীর হোসেনসহ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে মরদেহের সুরতহাল রিপোর্ট করি। বাম কাঁধে গুলির মতো দেখা গেলেও এটি গুলির সিমটম কি না তা তিনি বলতে পারেননি। তবে ময়নাতদন্তের পর নিশ্চিত হওয়া যাবে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর হয়েছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App