×

এই জনপদ

কুমারখালীতে স্বামীর আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলায় স্ত্রী জেলে

Icon

প্রকাশ: ১১ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কুমারখালী ( কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি : কুমারখালীর বাগুলাট ইউনিয়নের বানিয়াখড়ি গ্রামে রবিউল ইসলাম নামে এক ব্যক্তিকে সম্পত্তির লোভে ষড়যন্ত্র করে বিষপানে আত্মহত্যার প্ররোচণার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় নিহতের স্ত্রী মাহফুজা আক্তার রুলিকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছেন পুলিশ। এদিকে সংবাদ সম্মেলন করেছেন রবিউল ইসলামের মা বৃদ্ধা রোকেয়া খাতুন। তিনি বলেন, ‘আমার একটাই বেটা। তাও চলে গেল। কী নিয়ে বাঁচব সোনা? তোমরাই বলে দাও। হে আল্লাহ তুমিই এর বিচার কইরো।’ গতকাল শুক্রবার দুপুরে নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনে বিলাপ করতে করতে কথাগুলো বলছিলেন রোকেয়া খাতুন। জানা যায়, গত ৪ মে রাতে রবিউল ইসলামকে সম্পত্তির লোভে ষড়যন্ত্র করে বিষপানে হত্যার অভিযোগ ওঠে স্ত্রী, তিন সন্তান ও মেয়ে জামাইয়ের বিরুদ্ধে। রবিউল বাঁশগ্রাম সাব পোস্ট অফিসের পোস্টমাস্টার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। এ ঘটনায় রোকেয়া খাতুন ৫ মে রবিউলের স্ত্রী মাহফুজা আক্তার রুলি (৪৫), স্ত্রীর বড় বোন বেলী খাতুন (৫৫), ছেলে বন্ধন হোসেন (২০), মেয়ে সেতু খাতুন (২৫) ও ঋতু খাতুন (১৫) এবং জামাই মিলন হোসেনের (৩৩) বিরুদ্ধে কুমারখালী থানায় আত্মহত্যায় প্ররোচণার অপরাধে মামলা করেন। মামলায় ঘটনার দিন রাতেই পুলিশ স্ত্রী রুলিকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোর্পদ করলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন। অন্যান্য আসামিরা পলাতক রয়েছে। তাদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলমান রয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ। সংবাদ সম্মেলনে রোকেয়া খাতুন বলেন, প্রায় ৩০ বছর আগে বানিয়াখড়ি গ্রামের মৃত আদিল উদ্দিন শেখের মেয়ে মাহফুজা আক্তার রুলির সঙ্গে বিয়ে দেন তার একমাত্র সন্তান রবিউল ইসলামকে। বিয়ের পর থেকেই রুলি তার সন্তানকে শারীরিক ও মানুষিকভাবে নির্যাতন করত। তার দাম্পত্য জীবনে তিন সন্তান ও এক জামাই ছিল। সম্পত্তির লোভে প্রায়ই স্ত্রী, সন্তান ও জামাই রবিউলকে নির্যাতন করত। নির্যাতনের ধারাবাহিকতায় গত ৪ মে রাত আটটার দিকে আসামিরা প্রথমে নিজ বাড়ির ছাদে রবিউলকে ব্যাপক মারপিট করে এবং পরে কীটনাশক পান করায়। বিষপানের পর রবিউলের গোংড়ানি শুনে তিনি প্রতিবেশীদের সহায়তায় তার ছেলেকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন। সেখানে রবিউলের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ৫ মে সকালে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে ছেলের মৃত্যু হয়।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App