×

এই জনপদ

মেঘনা

ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোটারের আস্থায় মিলন

Icon

প্রকাশ: ০৭ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

মো. ইব্রাহীম খলিল মোল্লা, মেঘনা (কুমিল্লা) থেকে : মেঘনা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের আর মাত্র ২ দিন বাকি। তীব্র তাপদাহকে উপেক্ষা করে প্রার্থী ও তার কর্মী-সমর্থকরা প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন এমনটাই দেখা যায়। ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে নানা উন্নয়নের প্রতিশ্রæতি দিয়ে অতীতের ভুল-ত্রæটি শুধরে নতুন আঙ্গিকে উপজেলাকে ঢেলে সাজানোর আশ্বাসে প্রচারণা চালাচ্ছেন বই প্রতীকের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মিলন সরকার। প্রচারণায় ভোটারদের আস্থার জায়গাটি প্রায় পুরোটাই দখলে নিয়েছেন তিনি। তারুণ্যদীপ্ত প্রার্থী মিলন সরকারের হয়ে কাজ করছেন উপজেলার কয়েক হাজার নারী-পুরুষকর্মীরা। তাদের ভাষ্যমতে, যোগ্যতার দিক দিয়ে মো. মিলন সরকারের সমান আর কোনো প্রার্থী থেকে। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তিনিই জয়ী হবে বলেন আশাবাদী প্রার্থী ও কর্মী-সমর্থকরা। একই ধরনের কথা বলছেন উপজেলার ৮ ইউনিয়নের সাধারণ ভোটাররা। তাদের মতে, উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ একটি পদ। এখানে তারা এমন প্রতিনিধিত্ব বেছে নেবেন যার থাকবে জনগণের জন্য দিন-রাত এক করে কাজ করার মানসিকতা, থাকবে কাজ করার মতো সব দিক দিয়ে মানানসই অবস্থান। সেই দিক বিবেচনায় যোগ্য প্রার্থী হিসেবে মো. মিলন সরকারের ধারের কাছেও নেই অন্য কোনো প্রার্থী। ভোটারদের এমন আস্থাকেই নিজের বড় শক্তি বলে মনে করছেন বই প্রতীকের এ প্রার্থী। জনগণের হয়ে কাজ করবেন যেকোনো অবস্থানে থেকে- এমনটাই প্রতিশ্রæতি তার। মিলন সরকারের প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন তালা প্রতীকের মো. রবিন মিয়া, চশমা প্রতীকের মো. আবুল কালাম, টিউবওয়েল প্রতীকের মো. খলিলুর রহমান। মো. মিলন সরকার এই প্রতিনিধিকে বলেন, বিগত ৫ বছর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদে ছিলাম। হলফ করে বলতে পারি ক্ষমতার সদ্ব্যবহার করেছি, অপব্যবহার করিনি। ভাইস চেয়ারম্যান পদটি অত্যন্ত সম্মান ও গুরুত্বপূর্ণ পদ। এই চেয়ারে বসে মানুষের জন্য অনেক কিছু করার সুযোগ রয়েছে। আমি চেষ্টা করেছি অবকাঠামোগত উন্নয়ন থেকে শুরু করে সবকটি সেক্টরে কাজ করার। কাজ করতে গিয়ে সব সময় হয়তো সফল হইনি তবে চেষ্টা করেছি। তিনি বলেন, গত নির্বাচনে পাস করার এক বছরের মধ্যে বিশ্বব্যাপী শুরু হয়ে গেল করোনা মহামারি। যখন সারাদেশের মানুষ ঘরমুখো তখন আমি বাইরে থেকে জীবনের ঝুঁঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালন করেছি। আমি দ্বিতীয়বারের মতো প্রার্থী হয়েছি, অনেক কিছু শিখেছি ও দেখেছি, অভিজ্ঞতা অর্জন হয়েছে আমার। যদি জনগণ আমাকে ভোট দিয়ে জয়লাভ করান তাহলে অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করতে পারব।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App