×

এই জনপদ

মাটি কেটে ইটভাটায় বিক্রি

বরগুনায় অনাবাদি হচ্ছে ফসলি জমি

Icon

প্রকাশ: ০৪ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

বরগুনায় অনাবাদি  হচ্ছে ফসলি জমি
বরগুনা প্রতিনিধি : বরগুনায় ফসলি জমির মাটি কেটে নেয়া হচ্ছে ইটভাটায়। এতে হুমকির মুখে পড়ছে আবাদি জমি। ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন কৃষকরা। মাটি কাটার ফলে জমির উর্বরতা শক্তি নষ্ট হচ্ছে। আবাদি জমি পরিণত হচ্ছে অনাবাদিতে। এতে কমতে শুরু করেছে ফসলের উৎপাদন। সেইসঙ্গে পার্শ্ববর্তী জমি মালিকদের মধ্যেও ভাঙন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ছে। সরজমিন গিয়ে দেখা যায়, বরগুনা সদর উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নের বুড়িরচর মৌজার বুড়িরচর আলহাজ মফিজউদ্দিন গাজী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সামনে ও বুড়িরচর ইউনিয়ন ভূমি অফিসের সামনে ফসলি জমি থেকে এক্সকেভেটর (ভেকু) দিয়ে মাটি কাটা হচ্ছে। মাটি ব্যবসায়ীরা একটি মেশিন দিয়ে ৬-৭ ফুট গভীরভাবে মাটি কেটে ইটভাটায় নিয়ে যাচ্ছেন। এক জমির মাটি কাটায় অন্যদের জমি উঁচু হচ্ছে। এতে বাধ্য হয়ে তারাও মাটি অথবা জমি বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন। এসব এলাকার মাটি ব্যবসায়ীরা প্রভাবশালী হওয়ায় প্রতিবাদ করতে সাহস পাচ্ছে না সাধারণ মানুষ। স্থানীয়রা জানান, কৃষি জমি থেকে দিনরাত অবাধে মাটি কাটা হচ্ছে। মাটি বহনে অবৈধ ট্রাক্টর (কাঁকড়া) ব্যবহৃত হওয়ায় গ্রামীণ রাস্তাগুলো নষ্ট হয়ে গেছে। পাকা রাস্তা দিয়েও এসব মাটি বহন করা হয়। এর ফলে রাস্তাগুলো ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে গেছে। হালকা বৃষ্টি হলে রাস্তায় পড়ে থাকা মাটি পিচ্ছিল হয়ে এসব রাস্তায় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা রয়েছে। তারা আরো জানান, বরগুনা সদর উপজেলার কেওড়াবুনিয়া ইউনিয়নের ডৌয়াতলা বাজারে ২০০ মিটারের মধ্যে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও একটি মাদ্রাসা থাকার পরও এসডিএন ব্রিকস নিয়ম না মেনে তৈরি করা হয়েছে। তিনটি ইউনিয়নের ফসলি জমি থেকে এসব মাটি নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে বুড়িরচর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির বলেন, আমি এখন মিটিংয়ে আছি পরে কথা হবে। বুড়িরচর ইউনিয়ন ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা পলাশ লস্কর বলেন, আমি বিষয়টি আগে দেখিনি। এখন এসে দেখলাম। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানাব। উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম মিঞা বলেন, ফসলি জমি থেকে মাটি বিক্রি করার কোনো সুযোগ নেই। আমি বিষয়টি শুনেছি। এরকমটা করে থাকলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App