×

এই জনপদ

হাটল²ীগঞ্জে ময়লার স্তূপ দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ বাসিন্দারা

Icon

প্রকাশ: ০৪ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

হাটল²ীগঞ্জে ময়লার স্তূপ দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ বাসিন্দারা
মোহাম্মদ সেলিম, মুন্সীগঞ্জ থেকে : মুন্সীগঞ্জ শহরের প্রাণকেন্দ্র হাটল²ীগঞ্জ এলাকায় ময়লার স্তূপের দুর্গন্ধে সাধারণ মানুষ অতিষ্ঠ। এখানে বসবাস কিংবা স্বাভাবিক চলাফেরা অসম্ভব হয়ে পড়েছে। এখানকার বাসিন্দারা এ পরিস্থিতি থেকে কোনোভাবেই মুক্তি পাচ্ছেন না। পৌরসভার পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা হাটল²ীগঞ্জ এলাকা থেকে প্রতিদিন পুরো ময়লা না নেয়ার কারণে এখানে এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। মুন্সীগঞ্জ লঞ্চ র্টামিনালে যাওয়ার একমাত্র পথ হচ্ছে এটি। এখান দিয়ে গজারিয়া উপজেলার হোসেন্দিতে যাওয়ার পথও রয়েছে। এ পথে রয়েছে শহরের একাধিক ফলের আড়ত ও ডিমের ব্যবসার দোকান। শহরের শেষ প্রান্তের এলাকাতে রয়েছে ব্যাংকসহ মসজিদ, অটো রাইসমিল ও মুড়িরমিল। হাটল²ীগঞ্জের ধলেশ্বরী নদীর কোল ঘেঁষে গড়ে উঠেছে ইট-বালুর ব্যবসা। তাছাড়া এখানে বেড়িবাঁধ থাকায় সকালে প্রাতঃভ্রমণে ও বিকালে ধলেশ্বরী নদীর শীতল বাতাস উপভোগ করতে সব শ্রেণিপেশার লোকের আগমন ঘটে এখানে। অনেক রাত পর্যন্ত লোকের সমাগম থাকে। সবকিছু বিবেচনায় এলাকাটি পৌরবাসীর কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। পৌর এলাকায় এখানকার বাসিন্দারা কোথাও ময়লা ফেলার জায়গা না থাকায় মানুষ শহরের এ রাস্তার পাশে নিত্যদিনের ময়লা ফেলে স্তূপ তৈরি করছে। যার কারণে এখানে নিত্যদিন ময়লার স্তূপ তৈরি হচ্ছে। অনেকে আবার দূর থেকে পায়ে হেঁটে কিংবা মিশুকে চড়ে কাজের অজুহাতে এখানে এসে ময়লা ফেলতে দেখা গেছে। পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা এখান থেকে সবটুকু ময়লা প্রতিদিন পরিষ্কার করে না বলে অভিযোগ উঠেছে তাদের বিরুদ্ধে। এখান থেকে কয়েক গাড়ি ময়লা নিয়ে যাওয়ার পরে তারা আর বাকি ময়লা নিতে আসেন না। ফলে পরের দিন আবার আগের ময়লার ওপরেই ময়লা রাখা হচ্ছে। তাতে পুরনো ময়লার স্তূপ থেকে দুর্গন্ধ সব ছড়িয়ে পড়ে। এছাড়া কুকুর ময়লাগুলো নাড়াচাড়া করায় দুর্গন্ধ সব জায়গায় ছড়িয়ে যায়। স্থানীয় সালাউদ্দিন বাবুল বলেন, আমার বাড়ি যেখানে ময়লা রাখা হচ্ছে এর পূর্ব দিকে। এখানে ময়লার দুর্গন্ধে বসবাস করা দুষ্কর হয়ে পড়েছে। তবে প্রতিদিনের ময়লা প্রতিদিন এখান থেকে পরিষ্কার করা হলে এমনটি হতো না। আমি জোর দাবি জানাচ্ছি যেন প্রতিদিন এখান থেকে সবটুকু ময়লা পরিষ্কার করা হয়। মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র মুহাম্মদ সোহেল রানা রানু বলেন, এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App