×

এই জনপদ

সেতুমন্ত্রীর ভুয়া ডিও লেটারে বদলি স্থগিত

নোয়াখালীর সেই প্রকৌশলীর শাস্তি দাবিতে মানববন্ধন

Icon

প্রকাশ: ২৯ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

নোয়াখালী প্রতিনিধি : সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের প্যাডে ভুয়া ডিও লেটার তৈরি করে গৃহায়ন ও গণপূত মন্ত্রীকে বোকা বানিয়ে নিজ বদলি স্থগিত করা নোয়াখালীর গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সা’দ মোহাম্মদ আন্দালিবকে চাকরিচ্যুত ও বিভাগীয় শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে ঠিকাদার ও স্থানীয়রা। গতকাল রবিবার দুপুরে জেলা শহরের গণপূর্ত বিভাগের সামনে এই মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে সকাল থেকে গণপূর্ত বিভাগ নোয়াখালী কার্যালয়ের গেইটে তালা ঝুলিয়ে রাখেন কর্মকর্তারা। এ সময় অফিসের বাহিরে অবস্থান করা ডিবি পুলিশের সদস্যরা ঠিকাদারদের কার্যালয়ে ডুকতে বাধা দেয়। মানববন্ধনে গণপূর্ত বিভাগ নোয়াখালীর তালিকাভুক্ত ঠিকাদার মো. আবু নাছের, রাজিব হোসেন, ওমর শাহেদ রিশাদ, আল মাহমুদ হোসেন রোমেল প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। ঠিকাদাররা বলেন, প্রকৌশলী সা’দ মোহাম্মদ আন্দালিব নোয়াখালীতে যোগ দেয়ার পর থেকে অনিয়মের মাধ্যমে নিজ পছন্দের ঠিকাদারদের সুবিধা দিতে ইজিপি দরপত্র নিয়ন্ত্রণ, সরকারি জমি বেদখলে সহযোগিতাসহ নানা অনিয়ম-দুর্নীতি করে আসছেন। এসব অনিয়ম ও দুর্নীতির কয়েকটি গণমাধ্যমেও ফাঁস হয়েছে। উল্লেখ্য যে, গত ২০ মার্চ গণপূর্ত অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ শামিম আখতারের স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে নোয়াখালী থেকে সা’দ মোহাম্মদ আন্দালিবকে ফেনী গণপূর্ত বিভাগে বদলি করা হয়। একই আদেশে ফেনী গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. কামরুল হাছানকে নোয়াখালীতে সা’দ মোহাম্মদ আন্দালিবের স্থলাভিষিক্ত করা হয়েছে। কিন্তু আন্দালিব মো. কামরুল হাছানকে দায়িত্ব ঝুঝিয়ে না দিয়ে নিজ বদলি ঠেকাতে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের প্যাডে ভুয়া ডিও লেটার তৈরি করে ৮ এপ্রিল গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে জমা দেন বলে অভিযোগ রয়েছে। ওই ভুয়া ডিও লেটার সত্য ভেবে গণপূর্ত মন্ত্রী র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী জরুরি ব্যবস্থা নিতে ডিও লেটারের ওপর তার মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেন। পরবর্তী সময়ে ওই ডিও লেটারটি ১৫ এপ্রিল ভুয়া বলে প্রকাশ পেলে প্রকৌশলী আন্দালিবের ফেনী জেলার বদলি স্থগিত করে দেয় মন্ত্রণালয়। গণপূর্ত বিভাগ নোয়াখালীর তালিকাভুক্ত ঠিকাদার মেসার্স জামাল অ্যান্ড কোংয়ের প্রোপাইটর মো. জামাল উদ্দিনসহ গণপূর্ত বিভাগের একাধিক ঠিকাদার অভিযোগ করে বলেন, ২৮০ কোটি টাকা ব্যয়ে আবদুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজের ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল ভবন নির্মাণকাজের জন্য ৪ জানুয়ারি দরপত্র আহ্বান করে নোয়াখালীর গণপূর্ত বিভাগ। ওই দরপত্রে অংশ নিয়ে মেসার্স জামাল অ্যান্ড কোং ও এনডিএ নামের দুটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নির্বাচিত হন। ওই কাজ পাইয়ে দিতে মোটা অঙ্কের বিনিময়ে ভুয়া কাগজপত্রে এনডিএ’কে নির্বাহী প্রকৌশলী আন্দালিব ও তার সেন্ডিকেটের সদস্যরা সহযোগিতা করে। দরপত্র নির্বাচনের পরই এনডিএ’র দাখিলকৃত কাগজপত্র ভুয়া বলে গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ করে মেসার্স জামাল এন্ড কোং এর প্রোপাইটর মো. জামাল উদ্দিন। মন্ত্রণালয়ে এনডিএ’র দাখিলকৃত কাজগপত্র ভুয়া প্রমাণিত হওয়ায় ওই কাজের পুনঃদরপত্র আহ্বান করে। এছাড়া সেন্ডিকেটের মাধ্যমে এপিপি-২২-২৩, ২৩-২৪ অর্থবছরের রাজস্ব খাতের প্রায় ১০ কোটি টাকার ভুয়া প্রকল্প দেখিয়ে বিপুল অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ ওঠে প্রকৌশলী আন্দালিবের বিরুদ্ধে। সর্বশেষ নির্বাহী প্রকৌশলী সা’দ মোহাম্মদ আন্দালিবকে গত বৃহস্পতিবার লালমনিরহাট জেলায় স্ট্যান্ড রিলিজ বদলি করা হয়। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের প্যাড ও স্বাক্ষরযুক্ত ডিও লেটারটি ভুয়া বলে নিশ্চিত করেছেন সেতুমন্ত্রীর পিএস গৌতম চন্দ্র পাল। গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রীর একান্ত সচিবের মোবাইলে কল করলে তিনি এই ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App