×

এই জনপদ

বন্দরের জাঙ্গাল ও কেওঢালা বাসস্ট্যান্ড

ফুটওভার ব্রিজ না থাকায় ঝুঁকি নিয়ে চলাচল

Icon

প্রকাশ: ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

দ্বীন ইসলাম, বন্দর (নারায়ণগঞ্জ) থেকে : দীর্ঘদিনের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে দুর্ঘটনা ও যানজট কমাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বন্দর উপজেলা অংশের মদনপুর ও লাঙ্গলবন্দ স্ট্যান্ডে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণে জনজীবন ও যাতায়াতে স্বস্তি নেমে এলেও ঝুঁকি রয়েছে উপজেলার জাঙ্গাল ও কেওঢালায়। আশপাশের কয়েকটি ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষ এ দুটি স্টপেজ ব্যবহার করে নিয়মিত। কিন্তু ফুটওভার ব্রিজ না থাকায় পথচারীদের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপার হতে দেখা যায়। এতে অহরহ এই দুটি স্পটে দুর্ঘটনায় পথচারীরা হতাহত হচ্ছেন। কয়েক বছরে এ দুটি স্থানে অসংখ্য দুর্ঘটনা ঘটলেও ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণের উদ্যোগ নেয়নি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এজন্য জনসাধারণ ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। করিম নামে স্থানীয় এক ব্যক্তি বলেন, গত শনিবার সকালে কেওঢালা স্টপেজ দিয়ে রাস্তা পার হওয়ার সময় বাসচাপায় পিতা-পুত্র মারা যায়। আহত হয়েছেন একই পরিবারের এক নারী। এখানে অহরহ দুর্ঘটনা ঘটছে। আর কোনো তাজা প্রাণ যাতে দুর্ঘটনায় না ঝরে সেজন্য অতিদ্রুত দুটি স্পটে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণের জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানাচ্ছি। গত বছরের ১৩ নভেম্বর জাঙ্গাল বাস স্ট্যান্ডে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণের জন্য ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা এ কে এম সেলিম ওসমান। এ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় কেওঢালা বাস স্ট্যান্ডেও যাতে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ করা হয় সে দাবি তোলা হয়েছিল। কিন্তু ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ৫ মাস পার হলেও জাঙ্গাল বাস স্ট্যান্ডে আজো ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ কাজ শুরু হয়নি। এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী শাহানা ফেরদৌস বলেন, ঠিকাদার নিয়োগসংক্রান্ত জটিলতার কারণে জাঙ্গাল স্ট্যান্ডে ফুটওভার ব্রিজের নির্মাণ কাজ বিলম্ব হচ্ছে। আশা করছি এই জুনের মধ্যে এর নির্মাণ কাজ শেষ করতে পারব এবং পর্যায়ক্রমে কেওঢালা স্ট্যান্ডেও ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App