×

সম্পাদকীয় ও মুক্তচিন্তা

নখের সোরিয়াসিস

চিকিৎসার পাশাপাশি প্রয়োজন বাড়তি যত্ন

Icon

ড. তৌহিদা নূর

প্রকাশ: ১৩ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

 চিকিৎসার পাশাপাশি প্রয়োজন বাড়তি যত্ন

সোরিয়াসিস একটি দীর্ঘমেয়াদি চর্ম রোগ। এটি ছোঁয়াচে বা বংশগত রোগ নয়। তবে গবেষণায় দেখা গিয়েছে, বাবা বা মা কারো সোরিয়াসিস থাকলে সন্তানদের হওয়ার সম্ভাবনা থাকে মাত্র ১০ শতাংশ। এ রোগের ধরন অনেকটা একজিমার মতো, তবে এটি একবারে যাওয়ার নয়। ত্বকের নিয়মিত যতœ নিলে এই রোগ অনেকটা নিরসনে থাকে। আমাদের হাইপ্রেশার বা ডায়াবেটিস হলে যেমন আজীবন নিয়ন্ত্রণ করতে হয়, সোরিয়াসিসও তেমনি নিয়ন্ত্রণ করতে হয়। তবে এর জন্য সব সময় যে ওষুধ খেতে হবে বা লাগাতে হবে এমন নয়। আপনার সোরিয়াসিসের তীব্রতা অনুযায়ী আপনার চর্ম বিশেষজ্ঞ আপনাকে মুখে খাবার বা লাগানোর ওষুধ দেবেন। সোরিয়াসিস নিরসনে থাকলে ময়শ্চারাইজার ছাড়া কোনো ওষুধ লাগানো নাও লাগতে পারে।

সোরিয়াসিস যে শুধু ত্বকে হয় তা নয়, এটা মাথার ত্বক, নখও আক্রান্ত করতে পারে। অনেক সময় গিরায়ে ব্যথা নিয়েও সোরিয়াসিস হতে পারে, একে সোরিয়াটিক আরথ্রাইটিস বলে।

নখের সোরিয়াসিস অনেকটা বেশি যন্ত্রণাদায়ক। এটা অনেক ক্ষেত্রেই স্বাভাবিক কাজ ব্যাহত করে। এছাড়া নখগুলো দেখতেও খারাপ হয়ে যায়। যেহেতু নখ বাড়তে অনেকটা সময় লাগে, তাই নখে যে কোনো ওষুধ কাজ করতে এবং ওষুধ ব্যবহারের পর কাক্সিক্ষত ফল পেতে প্রায় ৬ মাস বা তার বেশি সময় লাগে। ওষুধের পাশাপাশি নখের কিছু বাড়তি যতœও নেয়া লাগে।

নখের সোরিয়াসিসের লক্ষণ হলো, নখে ছোট ছোট পিট বা গর্ত হওয়া, নখ সাদা হয়ে যাওয়া, সামনের অংশ থেকে নখ ভেঙে যাওয়া, নখ মোটা হয়ে যাওয়া। শুরুতে কিছু নখে থাকলেও পরে সব নখে হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। অনেক সময় এটা দেখতে নখের ছত্রাক বা ফাঙ্গাস সংক্রমণের মতো লাগে এবং দেখা যায় দীর্ঘদিন ছত্রাকের চিকিৎসায় কোনো উন্নতি হচ্ছে না। কাজেই নখে কোনো অস্বাভাবিক কিছু লক্ষ করলে চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ বা ডারমাটোলজিস্টের পরামর্শ নেবেন।

নিচে নখের যতœ নিয়ে আলোচনা করা হলো-

১) আপনার নখে সোরিয়াসিস থাকলে সব ধরনের পানির কাজ কম করতে হবে, এমনকি আপনি সবজি বা ফল কাটতে রাবার গøাভস বা হাত মোজা ব্যবহার করবেন। রাবার গøাভস পরার আগে হাতে সুতি গøাভস আগে পরে তারপর রাবার গøাভস পরতে হবে, নতুবা রাবার গøাভসের ভেতরে হাত ঘেমে ভিজে থাকবে, যেটি কাম্য নয়।

২) নখ নিয়মিত কেটে বা ট্রিম করে ছোট রাখবেন।

৩) কোনো রকম মেনিকিউর করা থেকে বিরত থাকবেন, এতে নখের ক্ষতি হয় অনেক বেশি।

৪) মেয়েরা নেইল পোলিশ ব্যবহার করতে পারেন, তবে আঠা দিয়ে আলগা নখ লাগানো থেকে বিরত থাকবেন।

৫) হাই হিল জুতা বা সামনে সরু জুতা পরা থেকে বিরত থাকবেন।

৬) বাগানে কাজ করলে মোটা কাপড়ের গøাভস ব্যবহার করবেন।

৭) নখের নিচে পরিষ্কার করা থেকে বিরত থাকুন।

নখে সোরিয়াস হলে অভিজ্ঞ চর্মরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎসা ও নখের যতœ নেয়া আবশ্যক। তবে মনে রাখতে হবে, চিকিৎসা দীর্ঘমেয়াদি এবং নখ ভালো হতে অনেক দিন সময় লাগবে।

ড. তৌহিদা নূর : সায়েন্টিফিক সেক্রেটারি, সোরিয়াসিস অ্যাওয়ারনেস ক্লাব, ঢাকা।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App