×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

সম্পাদকীয় ও মুক্তচিন্তা

ডোনাল্ড ট্রাম্প ফৌজদারি মামলায় দোষী সাব্যস্ত

Icon

প্রকাশ: ০৩ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

ডোনাল্ড ট্রাম্প ফৌজদারি মামলায় দোষী সাব্যস্ত

মার্কিন ইতিহাসে এই প্রথম একজন সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিউইয়র্কের ম্যানহাটানে একটি আদালতে গত ৩০ মে ব্যবসায়ে কারচুপির ৩৪টি অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। বিচারক জুয়ান মার্চেন আগামী ১১ জুলাই রায় ঘোষণা করবেন বলে জানিয়েছেন এবং ট্রাম্পকে আদালতে উপস্থিত হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। ট্রাম্প নিজের পরিচয়ে এখন মুক্ত।

রায়ের পর ট্রাম্প বলেছেন, আসল রায় হবে ৫ নভেম্বর। হোয়াইট হাউস সরাসরি মন্তব্য করেনি। তবে বলেছে, আইন নিজস্ব পথে চলবে। বাইডেন ক্যাম্পেইনে বলেছেন, কেউই বিচারের ঊর্ধ্বে নন। সামাজিক মাধ্যমে বাইডেন বলেছেন, ব্যালটের মাধ্যমেই ট্রাম্পকে ঠেকাতে হবে। স্পিকার মাইক জনসন বলেছেন, এ রায় মার্কিন ইতিহাসে একটি ‘লজ্জাজনক’ ঘটনা। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন, আপিলে ট্রাম্প নির্দোষ প্রমাণিত হবেন।

ট্রাম্পের অ্যাটর্নিরা জানিয়েছেন, তারা আপিল করবেন, একাধিক আপিল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। রায় কার্যকর হবে সব আপিল শুনানি শেষে। আপিলের শুনানি শেষ হতে বছর চলে যাবে। তাই বলা হচ্ছে, নির্বাচনের আগে রায় কার্যকর হওয়ার সম্ভাবনা নেই? এই মামলায় ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ব্যবসায় জালিয়াতির ৩৪টি অভিযোগ ছিল। ১২ জন জুরি সর্বসম্মতভাবে ট্রাম্পকে দোষী ঘোষণা করেন।

ডোনাল্ড ট্রাম্প এখন একজন দণ্ডিত অপরাধী। তথাপি তিনি নির্বাচন করতে পারবেন এবং জয়ী হলে প্রেসিডেন্ট হতে পারবেন। ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেও নিজেকে ক্ষমা করতে পারবেন না, কারণ মামলাটি স্টেটের, প্রেসিডেন্ট ফেডারেল সাজা মাফ করতে পারেন, স্টেটের সাজা মাফ করার অধিকার তার নেই? এ রায় নির্বাচনে কতটা প্রভাব ফেলবে, সেটি এখন দেখার বিষয়। প্রশ্ন হচ্ছে, ট্রাম্পের ভোটাররা তাকে সমর্থন করবে? বিভিন্ন জরিপ বলছে, ট্রাম্পের ভোটাররা মনে করছেন, ট্রাম্পকে ফাঁসানো হচ্ছে; তাই ভোট কমে যাওয়ার সম্ভাবনা নেই।

নিউইয়র্কে ট্রাম্পের ফৌজদারি বিচার শুরু হয়েছে গত ১৫ এপ্রিল। মার্কিন ইতিহাসে এই প্রথম একজন সাবেক প্রেসিডেন্ট ফৌজদারি অপরাধে বিচারের সম্মুখীন হলেন। তার বিরুদ্ধে ব্যবসায় জালিয়াতি সংক্রান্ত ৩৪টি অভিযোগ। দোষী সাব্যস্ত হলে তার ৪ বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে চারটি ফৌজদারি মামলায় প্রায় ৮৯টি অভিযোগ রয়েছে। এগুলোর সর্বশেষ অবস্থা হচ্ছে- ওয়াশিংটন ডিসিতে ২০২০ নির্বাচনের ফলাফল বানচালের ষড়যন্ত্র দায়ে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মামলা পিছিয়ে গেছে। এটি শুরুর কথা ছিল ৪ মার্চ। ট্রাম্প আপিল করেছেন। তিনি দাবি করেন, ৬ জানুয়ারি তিনি যা করেছেন, তা প্রেসিডেন্ট হিসেবে করেছেন, সুতরাং এটি বিচারের আওতায় পড়ে না। ট্রাম্পের অপর মামলা নিউইয়র্কের ম্যানহাটান সুপ্রিম কোর্টে ব্যবসায় জালিয়াতি, যা শেষ হয়েছে এবং তিনি দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। ট্রাম্পের অন্য দুটি ফৌজদারি মামলার একটি হচ্ছে ফ্লোরিডায়, সেখানে তার বিরুদ্ধে হোয়াইট হাউস ছাড়ার পর ক্ল্যাসিফাইড ডকুমেন্ট অযতেœ নিজের কাছে রাখা এবং তার বাসস্থান থেকে সেগুলো উদ্ধারে বাধা দেয়া। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অন্য মামলাটি হচ্ছে, জর্জিয়া স্টেট নির্বাচনে বাধা সৃষ্টি। আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তিনি রিপাবলিকান দলের ফ্রন্ট-রানার। জয়ী হলে ২০ জানুয়ারি ২০২৫-এ হোয়াইট হাউসে উঠবেন। নির্বাচন আগামী ৫ নভেম্বর। প্রতিদ্ব›দ্বী প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

শিতাংশু গুহ : কলাম লেখক।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App