×

সম্পাদকীয় ও মুক্তচিন্তা

ভ্রমণ ভিসায় বিদেশ পাড়ি

দালালদের তৎপরতা বন্ধ করতে হবে

Icon

প্রকাশ: ১৯ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

 দালালদের তৎপরতা বন্ধ করতে হবে

কর্মসংস্থানের সন্ধানে ভ্রমণ ভিসায় বিভিন্ন দেশে প্রতি বছর লাখ লাখ বাংলাদেশি পাড়ি দিচ্ছেন। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি মানুষ যাচ্ছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতে। এদের অধিকাংশই ভিজিট তথা ভ্রমণ ভিসা নিয়ে দেশটিতে প্রবেশ করছেন। দালালদের ফাঁদে পা দিয়ে অনেকে মাথায় তুলে নিয়েছেন ঋণের বোঝা। আমিরাত গমনের পূর্বে কর্মসংস্থানের আশ্বাস পেলেও দেশটিতে প্রবেশের পর দেখা মিলছে তাদের চরম বাস্তবতার। কর্মহীন দিনযাপন, আবাসনবিহীন রাত্রিযাপন এমনকি ন্যূনতম খাবারের টাকাও জোগাড় হচ্ছে না অনেকের। বলার অপেক্ষা রাখে না, বৈধভাবে বিদেশে যাওয়ার প্রায় সব পথ রুদ্ধ হয়ে যাওয়ার কারণে অনেকেই অবৈধ উপায়ে বিদেশে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। এতে তারা প্রতারণা ও হয়রানির শিকার হচ্ছেন। গতকাল ভোরের কাগজের প্রধান প্রতিবেদনে বলা হয় রিক্রুটিং এজেন্সিগুলো দুবাই, মালয়েশিয়া, মিসর, ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়া, কিরগিজস্তান, কাজাখস্তানে শ্রমিক পাঠাচ্ছে ভিজিট বা ট্যুরিস্ট ভিসায়। এ জন্য জনপ্রতি ভিসা করতে নেয়া হয় ৪৫-৫০ হাজার টাকা। বিমানের টিকেটের জন্য নিচ্ছে ৫০ হাজার টাকা। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন পুলিশকে ‘ম্যানেজ’ করার জন্য নেয়া হয় ২০-৪০ হাজার টাকা। বিমানবন্দরে গিয়ে সংকেতের মাধ্যমে তারা ইমিগ্রেশন পার হচ্ছেন। এর সঙ্গে অনেক এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষও জড়িত বলে অভিযোগ রয়েছে। আর দুবাই যেতে অনেকের কাছে জনপ্রিয় ‘নোব্যাক ভিসা’। এতে কাজ পাওয়া অনিশ্চিত জেনেও ঝুঁকি নিয়ে যাত্রা করছেন তারা বিদেশের পথে। ট্যুরিস্ট ভিসায় দেশের বাইরে যাওয়ার পর ফিরে না এসে সেখানে অবৈধভাবে থেকে যাওয়া খুবই দুঃখজনক। এক শ্রেণির ট্রাভেল এজেন্সির কারসাজিতে পড়ে একদিকে যেমন নিঃস্ব হচ্ছে সাধারণ পরিবার। অন্যদিকে বিদেশে এভাবে গিয়ে তারা জেল হাজতে থাকছেন। দেশের ভাবমূর্তিও ক্ষুণ্ন করছে। অনেক সময় তারা মৃত্যুর কোলেও ঢলে পড়ছেন। এটি মানব পাচারের শামিল এ বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। অবৈধ পথে বিদেশযাত্রায় মৃত্যুর খবর নতুন নয়। মৃত্যু নিশ্চিত জেনেও জীবনে স্বপ্নের হরিণ ধরতে ঝুঁকি নিয়ে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে আফ্রিকার দেশ লিবিয়া থেকে ইউরোপে প্রবেশ করছে বাংলাদেশিসহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশের অভিবাসীরা। মৃত্যুর খবরও আসছে। এ যাত্রা মরণযাত্রা। বিদেশ গমনেচ্ছুদের দালালের খপ্পরে পড়ে প্রতারিত হওয়ার ঘটনা প্রায়ই ঘটছে। বিভিন্ন সময়ে দালালদের মাধ্যমে বিদেশে পাড়ি দিতে গিয়ে এমন স্বপ্নভঙ্গের বহু ঘটনা ঘটলেও তা বন্ধে কার্যকর উদ্যোগ দৃশ্যমান নয়। বিশেষ করে যেভাবে দালালরা উন্নত জীবনের মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে অবৈধ ও বিপদসংকুল পথে দেশের টগবগে যুবকদের ঠেলে দেয়, তা অবিলম্বে বন্ধ হওয়া দরকার। এ জন্য সবার আগে প্রয়োজন এসব কাজে জড়িত বিভিন্ন ট্রাভেল এজেন্সি ও দালালদের নির্মূল করা। শুধু তাই নয়, এমন অপকর্মে যারা জড়িত, তাদের প্রত্যেককে শাস্তির আওতায় আনা। অবৈধ পথে বিদেশযাত্রা রোধ ও বিদেশে নিরাপদ কর্মসংস্থানের নিশ্চয়তার জন্য বৈধ পথে কম খরচে প্রবাসে কর্মসংস্থানের সরকারি উদ্যোগে গতি আনা, প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ দিয়ে কর্মী প্রেরণ নিশ্চিত করা জরুরি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App