×

অর্থ শিল্প বাণিজ্য

রাউজানে ৬৬০০ টন আমের ফলন, দাম ২৬ কোটি টাকা

Icon

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

রাউজানে ৬৬০০ টন আমের  ফলন, দাম ২৬ কোটি টাকা

এম রমজান আলী, রাউজান (চট্টগ্রাম) থেকে : রাউজানে এ বছর ৬ হাজার ৬০০ টন বিভিন্ন জাতের আম উৎপাদন হয়েছে, যার বর্তমান বাজারমূল্য প্রায় সাড়ে ২৬ কোটি টাকা। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে- এ উপজেলায় ২০১৭ সালে গাছের চারা রোপণের বিপ্লব শুরু হয়েছিল।

তখন রাস্তাঘাট, খাল, জলাশয়ের পাড়, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, ক্লাব সংগঠনের চৌহদ্দির মধ্যে থাকা খালি জায়গায় প্রায় ৫ লাখ গাছের চারা রোপণ করা হয়। ওই সময় লাগানো চারার মধ্যে বেশির ভাগ ছিল কৃষি গবেষকদের উদ্ভাবন করা নানা জাতের আমের কলম। এলাকার মানুষ রোপণ করা চারার যতœ নেয়ায় রোপণ করা কলম থেকে দুই বছরের মাথায় ফলন দিতে শুরু করে। এখন গাছে গাছে পাওয়া যাচ্ছে প্রচুর ফলন।

সূত্র মতে আমের চাহিদা দেখে অনেকেই ব্যক্তিগত উদ্যোগে আমবাগান সৃষ্টি করেছে। বর্তমানে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ৫৫০ হেক্টর জমিতে আম চাষ হচ্ছে। এর মধ্যে ছোট-বড় ২৮টি বাগান রয়েছে ব্যক্তি মালিকায়। বাগান থেকে উৎপাদিত আম এখন তারা বাণিজ্যিকভাবে বাজারজাত করছে। উপজেলার পাহাড়তলী ইউনিয়নের কৃষক মোহাম্মদ ইসহাক নিজের জমিতে দেড় হাজার আমের কলম লাগিয়েছিলেন। তিনি এখন সৃষ্ট বাগান থেকে ভালো ফলন পাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন।

কদলপুরের কৃষক শওকত উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, তিন একর জমিতে প্রায় ৫০০ আমের কলম লাগিয়ে বাগান সৃষ্টি করেছেন। তার বাগানের মধ্যে রয়েছে আম্রপালি, হাড়িভাঙ্গা ব্যানানা ম্যাংগো, বারি আম ৪. ১১ জাত, কিউ জাই, ব্রনাই কিং, পালমার, সূর্য ডিম্ব ও গোড়মতিসহ নানা জাতের কলম।

কৃষি বিভাগের হিসাব মতে ২০১৬-১৭ সালে এখানে ফলদ চারা রোপণ করা হয়েছিল ২০ হাজার, ২০১৭-১৮ সালে সনদসহ চারা রোপণ করা হয় ৪ লাখ ৮৭ হাজার ৫৪০টি। এ বছর রাউজানের সংসদ সদস্য এ বি এম ফজলে করিম চৌধরী এলাকার সর্বস্তরের মানুষকে সম্পৃক্ত করে এক ঘণ্টায় বিপুলসংখ্যক চারা লাগিয়ে রেকর্ড সৃষ্টি করেছিলেন। এরপর থেকে চারা লাগানোর ধারাবাহিকতার মধ্যে ২০১৮-১৯ সালে মিশ্র শ্রেণির চারা রোপণ করা হয়েছে দেড় লাখ।

২০১৯-২০ সালে রোপণ করা হয়েছে ৪০ হাজার, ২০২০-২১ সালে স্থানীয় সংসদ সদস্য, কৃষি বিভাগ ও বন বিভাগের যৌথ উদ্যোগে ২০ হাজার, ২০২১-২২ সালে উপজেলার প্রতিটি আশ্রয়ণ প্রকল্পে ৪০ হাজার, ২০২২-২৩ সালে রোপণ করা হয়েছে আরো ৫ লাখ চারা। সর্বশেষ এ বর্ষায় আরো দেড় লাখ চারা লাগানোর কমসূচি চলমান আছে।

ফলন নিয়ে জানতে চাইলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাসুম কবির ভোরের কাগজকে বলেন, এ কৃতিত্ব এলাকার সংসদ সদস্য এ বি এম ফজলে করিম চৌধরীর। তিনিই এ বিপ্লবের মহানায়ক। তার নির্দেশনায় কৃষি বিভাগের সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী কাজ করেছেন। চারা রোপণ থেকে শুরু করে বড় হয়ে ওঠা পর্যন্ত মাঠপর্যায়ে থাকা কৃষি বিভাগের কর্মকর্তারা এলাকার মানুষকে চারা গাছের পরিচর্যায় প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিয়েছেন। এর সুফল এখন রাউজানের মানুষ ভোগ করছেন।

এ কর্মকর্তা বলেন, চলতি মৌসুমে রাউজানে আমের উৎপাদন হয়েছে ৬ হাজার ৬০০ টন, প্রতি কেজির মূল্য ৪০ টাকা হিসেব করে উৎপাদিত আমের মূল্য দাঁড়ায় ২৬ কোটি ৪০ লাখ টাকা।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App