×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

অর্থ শিল্প বাণিজ্য

সাড়ে ৩ হাজার কর্মীর চাকরি বহালের দাবি

Icon

প্রকাশ: ০৫ জুলাই ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের ক্লিনিক্যাল কনট্রাসেপশন সার্ভিসেস ডেলিভারি প্রোগ্রাম প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হয়েছে গত ৩০ জুন। ফলে এ প্রকল্পে কর্মরত সাড়ে তিন হাজার পেইড পেয়ার ভলান্টিয়ার চাকরি হারিয়েছেন। এ ফলে এখন থেকে দুর্বিষহ জীবন কাটাতে হবে তাদের। তাই এ প্রোগ্রামের সাড়ে তিন হাজার কর্মী চাকারি বহালের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ পেইড পেয়ার ভলান্টিয়ার অ্যাসোসিয়েশন।

গত বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন পেইড পেয়ার ভলান্টিয়ারের সভাপতি লায়লা আকতার। এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুমি, সাংগঠনিক সম্পাদক জান্নাতুল মাওয়া লাবনী প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলন জানানো হয়, পেইড পেয়ার ভলান্টিয়াররা নববিবাহিত দম্পত্তিদের পদ্ধতি গ্রহণে উদ্বুদ্ধ করা, গর্ভবতী মা রেফার করা, গর্ভকালীন সেবা, প্রসবোত্তর সেবা, ইপি আই কার্যক্রম, ভিটামিন এ ক্যাম্পল ক্যাম্পেইন, হাম রুবেলা, কিশোর কিশোরী সেবা ও পরামর্শ দেয়া, গর্ভবতী মায়েদের তালিকা হাল নাগাদ করা, জন্মমৃত্যুর তালিকা হাল নাগাদ করা, প্রতিমাসে উঠান বৈঠক দম্পত্তিদের পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি গ্রহণ নিশ্চিত করে নিয়মিত প্রতি মাসে রিপোর্ট প্রদান করে। এছাড়া করোনা ভ্যাকসিন প্রদানে সহযোগিতা করে।

সংগঠনের সভাপতি লায়লা আকতার বলেন, ক্লিনিকেল কনট্রাসেপশন সার্ভিসেস ডেলিভারি প্রোগ্রাম কাজ নাই ভাতা নাই ভিত্তিতে ২০১৬ সালের মে মাস থেকে চালু হয়। দেশের ১০০টি উপজেলায় ৩ হাজার ৬৮৬ জন কর্মী কাজ করেছে।

তিনি বলেন, গত মাসের ২৩ তারিখ অধিদপ্তরের চিঠির মাধ্যমে জানতে পারি আমাদের কার্যক্রম এই বছরের ৩০ জুন বন্ধ হয়ে যাবে। ৭ দিন আগে প্রকল্প বন্ধের এ নোটিসে আমরা দিশেহারা হয়ে পড়ি। আমাদের অনেকের স্বামী প্রতিবন্ধী, অনেকে বিধবা, অনেকের স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদ হয়েছে। ফলে বাচ্চাদের ভরণপোষণের আমাদের বহন করতে হচ্ছে। সংবাদ সম্মেলনে প্রকল্পটি বহাল রেখে ৩ হাজার ৬৮৬টি পরিবারের ডাল-ভাতের সুযোগ করে দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আবেদন জানানো হয়।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App