×

অর্থ শিল্প বাণিজ্য

ডিএসইর ৭১ বছরে পদার্পণ

Icon

প্রকাশ: ২৯ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

ডিএসইর ৭১ বছরে পদার্পণ
কাগজ প্রতিবেদক : ৭১ বছরে পা রাখল দেশের প্রথম ও প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) লিমিটেড। ১৯৫৪ সালের ২৮ এপ্রিল ইস্ট পাকিস্তান স্টক এক্সচেঞ্জ অ্যাসোসিয়েশন লিমিটেড নামে এ প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠা লাভ করে। আনুষ্ঠানিক লেনদেন শুরু হয় ১৯৫৬ সালে। ১৯৬২ সালের ২৩ জুন নাম পরিবর্তন করে ইস্ট পাকিস্তান স্টক এক্সচেঞ্জ লিমিটেড করা হয়। ১৯৬৪ সালের ১৩ মে ওই নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ লিমিটেড। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় ডিএসইতে লেনদেন স্থগিত রাখা হয়। ১৯৭৬ সালের ১৬ আগস্ট লেনদেন পুনরায় চালু হয় এবং অদ্যাবধি লেনদেন ও উন্নয়ন কার্যক্রম অব্যাহত আছে। অত্যাধুনিক প্রযুক্তি এবং প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে বিশ্বমানের সেবা ও স্টেকহোল্ডারদের সর্বোচ্চ আস্থা নিশ্চিত করে এ অঞ্চলের নেতৃস্থানীয় এক্সচেঞ্জ এবং বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের মূল চালিকাশক্তি হওয়ার লক্ষে কাজ করছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ। প্রতিষ্ঠানটিতে বিভিন্ন ধরনের সিকিউরিটিজ (শেয়ার, মিউচুয়াল ফান্ড, ট্রেজারি বন্ড, ডিবেঞ্চার ও করপোরেট বন্ড) লেনদেন হয়ে থাকে। চলতি বছরের ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত ডিএসইর প্রধান মার্কেটের বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৬ লাখ ৯৯ হাজার ৫৭৬১ কোটি টাকা। এ সময়ে প্রতিষ্ঠানটিতে মোট ৬৬০টি সিকিউরিটিজ লেনদেন করছে। এর মধ্যে কোম্পানির শেয়ার রয়েছে ৩৫৯টি, মিউচুয়াল ৩৬টি, ডিবেঞ্চার ৮টি, সরকারি বন্ড ২৪০টি এবং কর্পোরেট বন্ড রয়েছে ১৬টি। ২০২৪ সালের ৩০ মার্চ পর্যন্ত ডিএসইর বাজার মূলধন এবং দেশের মোট জিডিপিতে অনুপাত ১৫.২২ শতাংশ। বর্তমানে ডিএসইর এসএমই মার্কেটের বাজার মূলধন ৩ হাজার ৪৩৪ কোটি লাখ টাকা। বর্তমানে এ মার্কেটে ১৯টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন করছে। ডিএসইর এটিবি মার্কেটের বাজার মূলধন ২ হাজার ৫১০ কোটি লাখ টাকা। বর্তমানে এ মার্কেটে ৬টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন করছে। ডিএসই প্রতিষ্ঠার শুরুতে অনুমোদিত মূলধন ছিল ৩ লাখ রুপি, যা ১৫০টি শেয়ারে বিভক্ত ছিল এবং প্রতিটির মূল্য ছিল ২ হাজার রুপি। ১৯৬৪ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি একটি বিশেষ সাধারণ সভায় এক্সচেঞ্জের অনুমোদিত মূলধন বৃদ্ধি করে ৫ লাখ রুপি করা হয়, যা ২ হাজার রুপি মূল্যমানের ২৫০টি শেয়ারে বিভক্ত ছিল। ১৯৯৮ সালের ১০ আগস্ট স্টক এক্সচেঞ্জে স্বয়ংক্রিয় ট্রেডিং পদ্ধতি চালু হয় এবং নতুন পরিসরে প্রবেশ করে আধুনিক প্রযুক্তিভিত্তিক ট্রেডিং পদ্ধতি। ২০০৪ সালের ২৪ জানুয়ারি স্টক এক্সচেঞ্জের লেনদেন পদ্ধতিতে পরিবর্তন আসে। শেয়ারকে ইলেকট্রনিক শেয়ারে রূপান্তরিত করে নতুন ও আধুনিক লেনদেন পদ্ধতি সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি সিস্টেমের সঙ্গে যুক্ত করা হয়। ১৯৭২ সাল থেকে এ পর্যন্ত ২৩ জন ব্যক্তি ডিএসইর চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে ডিএসইর চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন অধ্যাপক ড. হাফিজ মুহম্মদ হাসান বাবু। গত বছরের ৫ মার্চ ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদের ১০৫৪তম সভায় তাকে চেয়ারম্যান নির্বাচন করা হয়।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App