×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

সারাদেশ

শিবগঞ্জে দেড়শ বিঘা চিনা ফসল সাবাড়

Icon

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি : চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে পদ্মা নদীর চরাঞ্চলে দেড়শ বিঘা চিনা ফসল সাবাড় করেছে গরু। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের বাবুপুর ও ল²ীপুর চরে। এ নিয়ে শিবগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন কৃষক আবেদুর রহমান ও বেনজির আলী।

গত রবিবার দুপুরে সরজমিন দেখা গেছে- উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের ল²ীপুর চরে নিজস্ব ৫০ বিঘা জমিতে চিনা ফসল আবাদ করেন কৃষক আবেদুর রহমান। কিন্তু গত ৪ জুলাই ২০০-২৫০টি গরুর একটি পাল পুরো চিনা ফসল খেয়ে সাবাড় করেছে। ভুক্তভোগী কৃষক আবেদুর রহমান রাখালদের প্রতিবাদ করলেও তারা কোনো কর্ণপাত করেননি। উল্টো অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে প্রাণনাশের হুমকি দেন রাখালরা। এদিকে উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের বাবুপুর চরে নিজস্ব প্রায় ১০০ বিঘা জমিতে চিনা ও লামা ফসল আবাদ করেন কৃষক বেনজির আলী। তার জমিতে ৩ জুলাই ৩০০-৩৫০টি গরুর একটি পাল পুরো চিনা ও লামা ফসল খেয়ে সাবাড় করেছে। প্রতিবাদ করলেও তারা কোনো কর্ণপাত করেননি।

জানা গেছে, চরাঞ্চলের পতিত জমি ফেলে না রেখে চিনা আবাদে ঝুঁকছেন এখানকার কৃষকরা। কম খরচে বেশি লাভ হওয়ায় কৃষকদের কাছে কদর বেড়েছে চিনার। বিলুপ্তপ্রায় এই ফসলটি নতুন করে আশা জাগিয়েছে চরাঞ্চলের কৃষকদের। বর্তমানে শিশুখাদ্য তৈরিতে চিনার ব্যাপক চাহিদা থাকায় দাম ও কদর দুটোই বেড়েছে এ শস্যের। কিন্তু লাভ তো দূরের কথা পুঁজিও উঠবে না কৃষকদের। গরুর পালে পুরো চিনা ফসল নষ্ট করেছে। পাহারাদার এনামুল হক জানান, সন্ধ্যার দিকে চর থেকে চলে আসার পর গরুর পাল সাবাড় করেছে চিনা ফসল। নিষেধ করলেও রাখালরা কোনো কথা শুনেন না। উল্টো গালাগাল ও ভয়ভীতি দেখায়।

ভুক্তভোগী কৃষক আবেদুর রহমান জানান, এই ফসল বিক্রি নিয়েও কোনো ঝামেলা বা চিন্তা নেই। মাড়াই মৌসুমের আগেই পাইকার এসে অগ্রিম টাকা দিয়ে থাকেন। কিন্তু সব স্বপ্ন ভেঙে গেছে। চরের সব চিনা ফসল গরুর পালে সাবাড় করেছে। এতে প্রায় দশ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতিপূরণ পেতে পুলিশের সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।

কৃষক বেনজির আলী জানান, সার তেল খরচ করে চরাঞ্চলে বোরো আবাদের চেয়ে চিনা আবাদ অনেক লাভজনক। এ আবাদে হালচাষ আর বীজ ছাড়া আর কোনো খরচ নেই। কিন্ত লাভের আশায় সব শেষ হয়ে গেছে। গরুর রাখাল রোশদুল ইসলাম স্বীকার করে জানান, মাঠে রাতে ঘুমিয়ে থাকার সুযোগে গরুর পাল চিনা ফসল খেয়েছে। পরে গরুগুলোকে সেখান থেকে অন্য স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

শিবগঞ্জ থানার এএসআই জাহাঙ্গীর আলম জানান, প্রাথমিকভাবে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App