×

সারাদেশ

নোমান হত্যার ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

Icon

প্রকাশ: ২৬ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

শান্তিগঞ্জ (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জ জেলার শান্তিগঞ্জ উপজেলায় দরগাপাশা ইউনিয়নের সিচনী গ্রামের নোমান মাহমুদ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. সুফি মিয়াকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় ২৪ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ১০/১৫ জনকে অঅসামি করা হয়।

গত সোমবার রাতে নিহত নোমান মাহমুদের নাতি সিচনী গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে মো. আজিজুর রহমান বাদী হয়ে শান্তিগ।হজ থানায় এই হত্যামামলা দায়ের করেন।

জানা গেছে, মামলায় ১ নম্বর আসামি হলেন দরগাপাশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. সুফি মিয়া ও দ্বিতীয় আসামি হলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মো. সেলিম রেজা।

এদিকে মামলা দায়ের করার পর শান্তিগঞ্জ থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত আসামি সিচনী গ্রামের আনোয়ার মিয়ার ছেলে মঞ্জু মিয়া (২৮), একই গ্রামের মৃত জুবেদ মিয়ার ছেলে আবিদ মিয়া (৪৭) ও আমির আলী (৪৫), আবিদ মিয়ার ছেলে ইব্রাহিম মিয়াকে গ্রেপ্তার করে(২৪)। তাদের গতকাল মঙ্গলবার আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ৫ মাস আগে ইউপি চেয়ারম্যান মো. সুফি মিয়ার ইটভাটার ট্রাক্টর গ্রামের মধ্যে দিয়ে চলাচলের ফলে ধুলাবালি গ্রামের লোকজনদের চোখে-মুখে পদে। এতে শ্বাস-প্রশ্বাসের রোগবালাইসহ পরিবেশ দূষণ করে। এর প্রতিবাদ করেন ভিকটিম নোমান মাহমুদ ও অন্য জখমী সাবেক ইউপি সদস্য জামিল আহমদ পায়েল । গত ১৫ জানুয়ারি সুফি মিয়া ও তার গোষ্ঠির লোকজন ভিকটিম নোমান মাহমুদসহ তাদের গোষ্ঠির লোকজনদের মারপিট করে। পূর্ব বিরোধ ও গ্রাম্য আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গত শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে সুফি মিয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মো. সেলিম রেজাসহ এজাহারনামীয় ২৪ জন ও অজ্ঞাত ১০-১৫ জন বাদীর চাচা নোমানসহ তার ছেলে সাবেক ইউপি সদস্য জামিল আহমদ পায়েলকে মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করে। পরে চিকিৎসার জন্য সিলেট ওসমানী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে ভিকটিম নোমান মাহমুদ মারা যান এবং আহত জামিল আহমদ পায়েলকে ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। অত্র মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (উপপরিদর্শক) মো. আফতাবউজ্জামান রিগ্যান জানান, মামলা রুজুর পরপরই অভিযান পরিচালনা করে অভিযুক্ত ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ আদালতে অভিযুক্তদের চালান দেয়া হয়েছে।

শান্তিগঞ্জ থানার ওসি কাজী মুক্তাদির হোসেন মামলা রুজুর সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মামলার প্রকৃত রহস্য উদ্ঘাটনে তদন্ত অব্যাহত আছে। পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তার অভিযান চলমান রয়েছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App