×

সারাদেশ

বকশীগঞ্জে যৌন হয়রানির অভিযোগ

বিচার না পেলে আত্মহত্যার হুমকি সাবেক নারী ভাইস চেয়ারম্যানের

Icon

প্রকাশ: ১১ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

সাইমুম সাব্বির শোভন, জামালপুর থেকে : বকশীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের সঙ্গে প্রতারণা ও যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এছাড়া এই ঘটনায় বকশীগঞ্জ থানাপুলিশের বিরুদ্ধে মামলা না নেয়ারও অভিযোগ করেছেন ওই মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান। এ অবস্থায় বিচার না পেলে সপরিবারে আত্মহত্যার হুমকি দিয়েছেন তিনি।

গত শনিবার রাতে জামালপুর জেলা প্রেস ক্লাবের অস্থায়ী কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী।

অভিযুক্তরা হলেন মাসুদ উল হাসান (৩৮), তিনি বকশীগঞ্জ পৌর এলাকার মৃত আব্দুল মান্নানের সন্তান। অন্যজন নামাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মো. আ. সালাম মাহমুদ।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জানান, একই শহরের বাসিন্দা থাকার সুবাদে দীর্ঘদিন ধরে মাসুদের সঙ্গে তাদের পারিবারিক সম্পর্ক। পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের সময় প্রচার-প্রচারণা ও মিথ্যা কথা বলে তার কাছ থেকে ৪ লাখ ৩২ হাজার টাকা নেয় মাসুদ। দীর্ঘদিন পর আবারো টাকা দাবি করে মাসুদ। সেই টাকা না দেয়ায় তাদের সম্পর্কের অবনতি হয়।

এছাড়া সালামের কাছ থেকে আমি কিছু টাকা ধার নিয়েছিলাম, যা পরবর্তী সময়ে পরিশোধ করেছিলাম। কিন্তু মাসুদ ও সালাম দীর্ঘদিন ধরে আমাকে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল। সর্বশেষ গত ২০ মে রাতে তারা দুইজন আমার বাড়ির রান্না ঘরে ঢুকে আমাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। কিন্তু ওই সময় আমার স্বামী চলে আসাই তারা পালিয়ে যায়। তিনি আরো বলেন, নির্বাচন থাকায় আমি এতদিন আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারিনি। তবে গত ৭ জুন রাতে মাসুদ আবার আমাকে কুপ্রস্তাব দেয় এবং আমার নামে মিথ্যা অপবাদ ছড়াতে থাকে। তাই আমি আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছি।

সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অভিযোগ করে বলেন, আমি মামলা করার জন্য থানায় সারা রাত ছিলাম। সকালে আবার গিয়েছিলাম, তবুও থানার ওসি আমার মামলা নেয়নি। আমি এখন সমাজে মুখ দেখাতে পারছি না। হয় পুলিশ দোষীদের গ্রেপ্তার করুক, না হয় আমি এই দুইজনের জন্য পরিবারসহ আত্মহত্যা করব।

তবে অভিযুক্ত মাসুদ মোবাইল ফোনে বলেন, সাবেক ওই মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান যে অভিযোগটি করছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। আমি তাকে যৌন নিপীড়ন করেছি বা অশ্লীল ইঙ্গিত দিয়েছি এটা যদি তারা প্রমাণ করতে পারে, তাহলে আমি আমার ফাঁসি চাই। গত তিন মাস ধরে তাদের সঙ্গে আমার কথা হয় না।

তিনি আরো বলেন, অভিযোগকারীর সঙ্গে আমাদের অনেক ভালো সম্পর্ক ছিল। কিন্তু তার স্বার্থে আঘাত লাগায় তিনি, তার স্বামী, বাবা ও ভাই মিলে গত ৭ জুন রাতে প্রাণনাশের উদ্দেশ্যে আমার উপর হামলা করে। এই ঘটনা ধামাচাপা দিতেই তিনি এখন এসব নাটক সাজাচ্ছেন।

এদিকে অভিযোগ অস্বীকার করে বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ খান মোবাইল ফোনে বলেন, পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। আমরা তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App