×

সারাদেশ

শেরপুরে দুর্নীতির অভিযোগে বন কর্মকর্তা বরখাস্ত

Icon

প্রকাশ: ১১ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

শেরপুর প্রতিনিধি : অর্থ কেলেঙ্কারির অভিযোগে রবিউল ইসলাম নামে এক বন কর্মকর্তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। তিনি শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার বালিজুরি ফরেস্ট রেঞ্জের সাবেক কর্মকর্তা ছিলেন।

জানা গেছে, ২০১৬ সালে তিনি বালিজুরি রেঞ্জ কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করেন। তার বাড়ি জামালপুরের মাদারগঞ্জে। তিনি এখানে যোগদানের পরপরই বিভিন্ন দুর্নীতির সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন। বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজমের এলাকার লোক হিসেবে দাপটে একই কর্মস্থলে ৮ বছর চাকরি করেন। মন্ত্রী এলাকার লোক হিসেবে ৮ বছর চাকরিকালীন সময়ে তিনি কাউকে কোনো প্রকার তোয়াক্কা করেননি বলে স্থানীয়রা জানান। তিনি ছিলেন একজন দাপুটে বন কর্মকর্তা। অভিযোগ রয়েছে, গত ৮ বছরে নানা দুর্নীতির মাধ্যমে বিপুল পরিমাণের অর্থের মালিক হয়েছেন। তার এসব দুর্নীতির মধ্যে নিলামে কাঠ বিক্রির অর্থ সরকারি কোষাগারে জমা না দিয়ে নিজের পকেটস্থ করেন। এভাবে তিনি গত ৮ বছরে একই কর্মস্থলে থেকে শুধু সরকারি অর্থই প্রায় ১০ কোটি টাকা হরিলুট করেন বলে অভিযোগ রয়েছে। গত ৩ মাস আগে বালিজুরি রেঞ্জ থেকে তার বদলি হলে নতুন কর্মকর্তা যোগদানের পর ঘটনাটি ফাঁস হয়ে যায়। পরে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বন কর্মকর্তা রবিউল ইসলামকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়। তার এসব অর্থ কেলেঙ্কারির অভিযোগ তদন্তের জন্য ৫ সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ইতোমধ্যেই তদন্ত কমিটি তদন্তের কাজ শুরু করেছে। গত ১০ বছরের রবিউল ইসলামের সব কর্মকাণ্ডের তদন্ত করা হবে বলে জানান কর্মকর্তারা। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ময়মনসিংহের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আ ন ম আব্দুল ওয়াদুদ বলেন, কী পরিমাণের দুর্নীতির ঘটনা ঘটেছে তা তদন্ত শেষে জানা যাবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App