×

সারাদেশ

ভোলায় রেমালে বিধ্বস্ত বেড়িবাঁধ

জোয়ারে অনেক এলাকা প্লাবিত হওয়ায় দুর্ভোগ

Icon

প্রকাশ: ০৯ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

ভোলা প্রতিনিধি : ঘূর্ণিঝড় রেমালের তাণ্ডবে ক্ষতবিক্ষত ভোলার বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ। পানি উন্নয়ন বোর্ডের হিসাব বলছে, বেড়িবাঁধের ১০ কিলোমিটার এলাকা বিধ্বস্ত হয়েছে। জোয়ারের পানি এলেই প্লাবিত হচ্ছে বিভিন্ন এলাকা। এতে চরম দুর্ভোগে স্থানীয়রা । তবে পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, পানি কমে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তারা দ্রুত ভেঙে যাওয়া বাঁধ মেরামত করেছেন।

দ্বীপ জেলা ভোলাকে অস্বাভাবিক জোয়ার ও জলোচ্ছ¡াস থেকে রক্ষা করতে পানি উন্নয়ন বোর্ড ২০১৯ সালে জেলাজুড়ে বেড়িবাঁধ নির্মাণ করে। কিন্তু ঘূর্ণিঝড় রেমালের আঘাতে জেলার ৩৭০ কিলোমিটার বাঁধের মধ্যে সাত উপজেলার বিভিন্ন স্থান দিয়ে প্রায় ১০ কিলোমিটার বাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর মধ্যে প্রায় ২০০মিটার বাঁধ সম্পূর্র্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, বেড়িবাঁধ দ্রুত মেরামত করলে ভালো হয়। আর বাঁধ আরো উঁচু করে নির্মাণ করতে হবে। এই ভাঙাগড়ার মাঝে পড়ে আমাদের জীবনযাত্রা থেমে আছে। আয়-রোজগার বন্ধ আছে এক রকম। উপকূলবাসীকে জলোচ্ছ¡াস থেকে রক্ষা করতে স্থায়ী সিসি বাঁধ দিয়ে বেড়িবাঁধ নির্মাণ করা এখন সময়ের দাবি।

ভোলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের মতে, ঝড়ের আঘাতে বোরহানউদ্দিন উপজেলার কুতুবা ইউনিয়নের তেঁতুলিয়া নদীর পাড়ে পাঁচটি স্থানের ৪৫ মিটার বাঁধ সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া মনপুরার ১২টি স্থানে ১৬৫ মিটার বাঁধ নদীতে বিলীন হয়েছে।

ভোলার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী হাসানুজ্জামান বলেন, যে অংশ ঝুঁকিপূর্ণ সে অংশ মেরামতের জন্য আমরা ইতোমধ্যে কাজ শুরু করে দিয়েছি। যেসব জায়গা ভেঙে গেছে সেগুলো দ্রুত বন্ধ করার ব্যবস্তা করা হয়েছে। যাতে জোয়ারের সময় পানি না ঢোকে। ভোলর জেলা প্রশাসক আরিফুজ্জামান বলেন, বেড়িবাঁধ যেখানে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সেখানে কাজ চলছে। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ও বিষয়টি ওয়াকিবহাল রয়েছে। আমরা আশা করছি, ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধগুলো দ্রুতই সংস্কার হয়ে যাবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App