×

সারাদেশ

পাবিপ্রবি কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি নানা সমস্যায় জর্জরিত

Icon

প্রকাশ: ০৬ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

পাবনা প্রতিনিধি : আসন সংকটসহ নানা সমস্যায় জর্জরিত পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি। পড়ার জন্য লাইব্রেরিতে গিয়ে পাওয়া যায় না আসন, বুকশেলফেও খুঁজে পাওয়া যায় না চাহিদা অনুযায়ী বই। এছাড়া ইন্টারনেটের ধীরগতি, পত্রিকা পড়ার জন্য টেবিল থাকলেও নেই ফ্যানের কোনো ব্যবস্থা। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শিক্ষার্থীরা।

লাইব্রেরি সূত্রে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, তিন তলা বিশিষ্ট লাইব্রেরি ভবন থাকলেও ভবনজুড়ে নেই এর কার্যক্রম। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪ হাজার ৫০০ শিক্ষার্থীর বিপরীতে লাইব্রেরিতে আসন সংখ্যা মাত্র ১২০টি। এর ফলে অনেক শিক্ষার্থী বই পড়ার জন্য লাইব্রেরিতে আসলেও আসন সংকটে বসতে না পেরে ফিরে যান। শুধু আসন সংকটই নয়, চাহিদা অনুযায়ী বইও পায় না শিক্ষার্থীরা।

লোক প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী গোলাম কিবরিয়া জানান, লাইব্রেরিতে পড়তে আসলে অনেক সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। এর মধ্যে আসন সংখ্যা প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম থাকায় অনেক আসন খালি না পেলে চলে যেতে হয়। এছাড়া প্রয়োজনীয় বইটিও পাওয়া যায় না। আবার মোবাইল এবং ল্যাপটপ চার্জ দেয়ার জন্য পর্যাপ্ত চার্জিং পোর্ট নেই।

তিনি আরো বলেন, দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ে লাইব্রেরি প্রায় রাত ১০টা নাগাদ খোলা থাকলেও আমাদের লাইব্রেরি সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খোলা থাকে। যেটা খুবই দুঃখজনক। শিক্ষার্থীরা যত বেশি সময় লাইব্রেরিতে থাকবে, ততই নিজেকে সমৃদ্ধ করার সুযোগ পাবে। এছাড়া কর্মক্ষেত্রে, গবেষণায় ও জানার পরিধিও প্রসারিত হবে। তাই কর্তৃপক্ষের কাছ অনুরোধ, শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে লাইব্রেরি খোলা রাখার সময় যেন বাড়ানো হয়।

সরজমিন গিয়ে দেখা যায়, লাইব্রেরি ভবনের ১ম ও ২য় তলা পুরোপুরি ব্যবহার করা হয় লাইব্রেরির জন্য। আর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভবন সংকটের জন্য তৃতীয় তলায় রয়েছে ইংরেজি বিভাগের অফিস ও ক্লাসরুম, রসায়ন বিভাগের অফিস এবং ভার্চুয়াল কনফারেন্স রুম। যার ফলে কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি পড়েছে জায়গা সংকটে। ফলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শিক্ষার্থীরা।

আসন সংকট ও বই সংকটের বিষয়ে লাইব্রেরিয়ান মো. হাফিজুর রহমান মোল্লা বলেন, বর্তমানে আমাদের একটি বড় সমস্যা আসন সংকট।

আশা করছি, দুই নম্বর একাডেমিক ভবনের কাজ হয়ে গেলে এবং কিছু ডিপার্টমেন্ট ওই ভবনে চলে গেলে রুমের সংখ্যা বাড়িয়ে লাইব্রেরিটা সুন্দর করে সাজাতে পারব। আর পরীক্ষার আগে বই সংকট নিয়ে সমস্যা বেশি দেখা যায়। এর সমাধানে আমরা একটি ডাটাবেস তৈরির কাজ করছি। শিক্ষার্থীরা লাইব্রেরির কম্পিউটারে বই বা লেখকের নাম সার্চ দিয়ে উপযুক্ত বইটা খুব সহজে খুঁজে পাবে। আরো অনেক বই আমাদের কাছে আছে জায়গা সংকটের কারণে রাখা সম্ভব হয়নি।

উল্লেখ্য, বর্তমানে কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে একাডেমিক বই, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক বই এবং গল্প ও উপন্যাসসহ প্রায় পঁচিশ হাজার বই রয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন রকমের আরো প্রায় দশ হাজার বই আছে, যেগুলো জায়গা সংকটের কারণে লাইব্রেরিতে রাখা সম্ভব হয়নি। এছাড়া রয়েছে ৩০০টি প্রিন্ট জার্নাল।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App