×

সারাদেশ

মদন

ব্রিজের অ্যাপ্রোচ নির্মাণে কৃষকের মুখে হাসি

Icon

প্রকাশ: ০৬ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি : সংসদ সদস্য সাজ্জাদুল হাসানের উদ্যোগে লরিভাঙা ব্রিজের অ্যাপ্রোচ সংযুক্ত হওয়ায় এলাকাবাসী ও কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। মদন উপজেলার মদন-কেন্দুয়া সড়ক থেকে পল্লী বিদ্যুৎ সাবস্টেশন থেকে মদন ইউনিয়নের ফেকনি গ্রাম হয়ে তিয়শ্রী ইউনিয়নের বাড়ৈউড়া গ্রামে গিয়ে মিলিত হয়ে নায়েকপুর ও ফতেপুর ইউনিয়নের চলাচলের পথ সংযুক্ত করেছে লরীভাঙা ব্রিজটি। সড়কটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৮ কিলোমিটার। এ সড়কে রয়েছে আরো ১০টি ছোট কালভার্ট। তবে লরীভাঙা ব্রিজটি দৈর্ঘ্যে বড়। এক সময় মদন, তিয়শ্রী, নায়েকপুর ও ফতেপুরের প্রায় ২০টি গ্রামের মানুষের একমাত্র যাতায়াতের সড়ক ছিল এটি। ১৪/১৫ বছর ধরে লরিভাঙা ব্রিজের অ্যাপ্রোচে মাটি না থাকায় এই সড়ক দিয়ে মানুষের যাতায়াত প্রায় বন্ধ যায়।

এতে দূরত্ব ও সময় বেশি লাগলেও অনেকেই মদন-কাপাসাটিয়া-কুটুরীকোনা-তিয়শ্রী সড়ক ব্যবহার করা শুরু করে। এতে বেশি কষ্টে পড়ে মদন ইউনিয়নের ফেকনী, তিয়শ্রী ইউনিয়নের বাগজান, বৈঠাখালী, তিয়শ্রী, ভবানীপুর গ্রামের মানুষ। বিশেষত এই গ্রামগুলোর কৃষকরা হাওরে জমি চাষাবাদের জন্য বিপাকে পড়ে। দীর্ঘদিন অনেক কষ্টে তারা ফসল করেছে। ব্রিজের অ্যাপ্রোচ সংযুক্ত না থাকায় হার্ভেস্টার মেশিনও হাওরে ঢুকতে পারে না। ফলে কৃষকরা কষ্ট করে ফসল কাটত।

এ বিষয়ে গত সোমবার মদন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহ্ আলম মিয়ার সঙ্গে কথা বললে তিনি বলেন, এ বছর সংসদ সদস্য সাজ্জাদুল হাসান গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার কাবিটা বরাদ্দে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দে ব্রিজের অ্যাপ্রোচে মাটি ভরাট করে চলাচল উপযোগী করা হয়েছে। এতে লোকজনের আবারো যাতায়াত শুরু হয়েছে। কৃষকরা হাওরের বোরো ফসল ঘরে তুলতে হার্ভেস্টার মেশিন ব্যবহার করতে পারবে। কৃষকদের পরিশ্রম ও খরচ কমবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App