×

সারাদেশ

নিপসমের সেমিনারে বক্তারা

ইউএইচসির ‘হার্ট’ হলো কমিউনিটি ক্লিনিক

Icon

প্রকাশ: ০৫ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : কমিউনিটি ক্লিনিককে ইউনিভার্সিটি হেলথ কভারেজের (ইউএইচসি) ‘হার্ট’ বলে আখ্যা দিলেন বিশেষজ্ঞরা। তারা বলছেন, এই কমিউনিটি ক্লিনিক নারীর ক্ষমতায়নে ভূমিকা রেখেছে। চিকিৎসাসেবা পেতে ব্যক্তির নিজস্ব ব্যয় কমানো এবং রোগের বোঝা কমানোর ক্ষেত্রে এই ক্লিনিক ভূমিকা রাখতে পারে।

‘কমিউনিটি ক্লিনিক : এ গেটওয়ে টু ইউনিভার্সেল হেলথ কভারেজ’ শীর্ষক এক সেমিনারে এসব কথা বলেন বক্তারা। গত সোমবার সকালে জাতীয় প্রতিষেধক ও সামাজিক চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানের (নিপসম) আয়োজনে প্রতিষ্ঠানের অডিটরিয়ামে এই সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। নিপসম পরিচালক অধ্যাপক ডা. মো. শামিউল ইসলামের সভাপতিত্বে সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন কমিউনিটি ক্লিনিক স্বাস্থ্য সহায়তা ট্রাস্টি বোর্ডের সভাপতি ও বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিলের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী। অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপউপচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. সীতেশ চন্দ্র বাছার, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. মো. তারিক মেহেদী পারভেজ, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হাসপাতাল ও ক্লিনিক শাখার পরিচালক ডা. আবু হোসেন মো. মঈনুল আহসান। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন নিপসমের কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. জিয়াউল ইসলাম। বক্তারা বলেন, কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে তৃণমূলে স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছে দেয়ার অভূতপূর্ব ধারণার রূপকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এটি তার স্বকীয় উদ্ভাবনী চিন্তার ফসল। অনেক দেশ তৃণমূল পর্যায়ে তাদের স্বাস্থ্য সেবায় এ মডেল অনুকরণ করছে। দেশে ১৪ হাজারের বেশি কমিউনিটি ক্লিনিক রয়েছে। দৈনিক গড়ে প্রতিটি কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে সেবা নিচ্ছেন ৪০ জন। কমিউনিটি ক্লিনিকের প্রতি দিন দিন মানুষের প্রত্যাশা বাড়ছে।

কমিউনিটি ক্লিনিকের ভূয়সী প্রশংসা করে অধ্যাপক ডা. মোদাচ্ছের আলী বলেন, অনেক দেশ তৃণমূল পর্যায়ে তাদের স্বাস্থ্যসেবায় কমিউনিটি ক্লিনিক মডেল অনুকরণ করছে। অভিযোগ আছে, কিন্তু যার যার জায়গা থেকে দায়িত্বটা আমাদের বুঝতে হবে। নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও সিএইচসিপিরা কাজ করছে।

স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় রেফারেল সিস্টেম চালুর পরামর্শ দিয়ে অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান বলেন, স্বাস্থ্য খাতে কিছু সমস্যা আছে। রেফারেল সিস্টেম চালু না করলে স্বাস্থ্যের সমস্যা কাটবে না। মেডিকেল অফিসারের রেফারেন্স ছাড়া অধ্যাপক পর্যায়ের চিকিৎসক রোগী দেখবে না। এটি কঠোরভাবে মানা হলে স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় শৃঙ্খলা আসবে। রোগীর চাপও কমবে।

অধ্যাপক ডা. শামিউল ইসলাম বলেন, ইউনিভার্সিটি হেলথ কভারেজের হার্ট হচ্ছে কমিউনিটি ক্লিনিক। কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোকে আরো বেশি সক্রিয় করতে সরকারের পাশাপাশি কমিউনিটির অর্থায়ন জরুরি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App