×

সারাদেশ

লালমনিরহাট

চোরাই পথে আসছে ভারতীয় গরু লোকসানের আশঙ্কায় খামারিরা

Icon

প্রকাশ: ০৩ জুন ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

শেখ জাহাঙ্গীর আলম শাহীন, লালমনিরহাট থেকে : গত শনিবার রাতে ঝড়বৃষ্টির সুযোগে সীমান্তের ওপার থেকে চোরাকারবারিরা বিপুল পরিমাণ ভারতীয় গরু প্রবেশ করায় দেশে।

এ খবরে দেশি খামারিদের মাথায় হাত পড়েছে। চোরাাই পথে আসা গরু ঈদের বাজারে দেশি গরুর বাজারে প্রভাব ফেলবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

খামারিরা বলছেন, ভারতীয় গরু এলে খামারে প্রতিপালন করা গরু কম মূল্যে বিক্রি করতে হবে। এতে গরু প্রতিপালনের খরচ উঠবে না। ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের কারণে বিশ্ববাজারে ডলারের দাম আশঙ্কাজনকহারে বেড়েছে। ফলে পশুখাদ্য ও ওষুধপত্র চড়া দাম দিয়ে কিনতে হয়েছে। তাতে পশুপালনের ব্যয় দ্বিগুণ বেড়েছে। এতে লোকসানের মুখে পড়তে পারেন খামারিরা।

লালমনিরহাট প্রাণিসম্পদ দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, এ জেলায় খামারি ও পারিবারিক খামারি রয়েছে ১৫ হাজারের বেশি। আসন্ন কুরবানির ঈদ উপলক্ষে প্রায় এক লাখ ৮৫ হাজারের বেশি গরু, ছাগল, খাসি, ভেড়া প্রস্তুত রয়েছে। এসব পশু এ জেলার চাহিদা পূরণ করে অন্য জেলায় যাচ্ছে। তবে গত বছরের লাম্বিং রোগের কারণে গরুর খামারিরা কিছুটা বেকায়দায় পড়েছিল।

এবার এই রোগের প্রাদুর্ভাব জেলায় নেই বললেই চলে। বৈশ্বিক অর্থনৈতিক কারণে ডলারের দাম বেড়েছে। যে কারণে বিদেশ থেকে আমদানি করা পশুখাদ্য ও ওষুধের দাম বাজারে কিছুটা বেড়েছে। ফলে পশু প্রতিপালনের ব্যয় বেড়েছে। এ অবস্থায় ভারতীয় গরু অবৈধ পথে এলে খামারিরা ক্ষতির মুখে পড়তে পারে।

লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার বিভিন্ন সীমান্ত পথে গত শনিবার রাতে ঝড়বৃষ্টির সুযোগ নিয়ে চোরাকারবারিরা কাঁটাতারের ওপার থেকে শত শত গরু বাংলাদেশে প্রবেশ করিয়েছে। জাওরানি সীমান্তের ছাত্রলীগ নেতা জাহিদ হাসান মন্ডল বলেন, শনিবার রাতে ওপার থেকে গরু এসেছে। এভাবে গরু এলে দেশি খামারি ও পারিবারিক খামারিরা তাদের প্রতিপালন করা গরুর দাম পাবেন না বলে আশঙ্কা করছেন।

লালমনিহাট জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর সরকার বলেন, জেলায় কুরবানির ঈদ উপলক্ষে পশুর কোনো সংকট নেই। পর্যাপ্ত পরিমাণে পশু মজুত রয়েছে। চাহিদার তুলনায় কয়েক হাজার বেশি পশু প্রতিপালন হয়েছে। প্রতিবেশী দেশ থেকে গরু অবৈধ পথে এলে খামারিরা অর্থনৈতিক ক্ষতির মুখে পড়বেন। তাই লালমনিরহাট জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রাণিসম্পদ বিভাগ লালমনিরহাট ৫১ ও লালমনিরহাট ৬১ বিজিবি ও লালমনিরহাট ১৫ বিজিবিকে পত্র দিয়ে জানানো হয়েছে, যাতে আসন্ন ঈদের আগে কোনো অবস্থায় সীমান্ত দিয়ে গরু না ঢুকে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App