×

সারাদেশ

শান্তিগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে আ.লীগের তিন প্রার্থীতে সরগরম ভোটের মাঠ

Icon

প্রকাশ: ৩০ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

শান্তিগঞ্জ প্রতিনিধি : আগামী ৫ জুন ৪র্থ ধাপে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের তিন প্রার্থীতে সরগরম হয়ে উঠছে ভোটের মাঠ। প্রার্থীরা প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। তারা বিভিন্ন এলাকায় নির্বাচনী প্রচার ও গণসংযোগ চালাচ্ছেন। কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে যাচ্ছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে।

গতকাল বুধবার সরেজমিন শান্তিগঞ্জ উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ঘুরে দেখা গেছে, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পাড়া-মহল্লার অলিগলি ও চায়ের দোকানগুলোতে চলছে প্রার্থীদের নিয়ে আলোচনা সমালোচনা। প্রার্থীদের নির্বাচনী পোস্টারে ছেয়ে গেছে গ্রাম-গঞ্জের হাটবাজার, অলিগলিসহ শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলো। সমর্থকদের গণসংযোগসহ উঠান বৈঠক ও পথসভা চলছে প্রতিদিন। গানে গানে ভোট চাওয়া হচ্ছে মাইকের মাধ্যমে। জমজমাট হয়ে উঠেছে নির্বাচনের প্রচারণা। নির্বাচন উপলক্ষে প্রার্থীরা দিন রাত এক করে ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। ভোটারদের মন জয়ে দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রæতি। ভোটারদের কাছ থেকে সাড়া পেয়ে জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী সব প্রার্থীই।

শান্তিগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, এবারের শান্তিগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন। চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগেরও তিনজন প্রার্থী প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন। তারা হলেন- অর্থনীতিবিদ ও শান্তিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সিনিয়র সহসভাপতি সাদাত মান্নান অভি (আনারস প্রতীক), সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ব্যবসায়ী হাজী আবুল কালাম (মোটরসাইকেল প্রতীক), শান্তিগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট বুরহান উদ্দিন দোলন (ঘোড়া প্রতীক)। পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে চারজন প্রার্থী প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন। তারো হলেন- মোশাররফ হোসেন জাকির (মাইক প্রতীক), রুকনুজ্জামান রুকন (চশমা প্রতীক), মাওলানা জাহাঙ্গীর খান (টিউবওয়েল প্রতীক), আনোয়ার হোসেন (তালা প্রতীক)। এছাড়া মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানসহ পাঁচজন প্রার্থী প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন। তারা হলেন- দুলন রানী তালুকদার (পদ্ম ফুল প্রতীক), মোছা. নাজমা বেগম (প্রজাপতি প্রতীক), মোছা. রফিকা মহির (ফুটবল প্রতীক), জেসমিন আক্তার (হাঁস প্রতীক) এবং খাইরুন নেছা (কলস প্রতীক)। শান্তিগঞ্জ উপজেলায় ৮টি ইউনিয়নে ১৫৫টি গ্রাম রয়েছে। মোট ভোটার ১,৪৫,৭৯৭ জন। তন্মধ্যে পুরুষ ভোটার ৭৪,২৮৫ জন, মহিলা ভোটার ৭১, ৫১০ জন ও হিজড়া ভোটার ২ জন।

এদিকে মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে আবারো নির্বাচন করছেন সদর আ.লীগ সভাপতি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও ব্যবসায়ী হাজী আবুল কালাম। তিনি জন্মসূত্রে শান্তিগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের বাসিন্দা হলেও ব্যবসা বাণিজ্য, বাসস্থান সবকিছুই সুনামগঞ্জ শহর কেন্দ্রিক। ভোটের মাঠে তার বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে তিনি জানান, ভোটের পরিস্থিতি বেশ ভালো। সাধারণ মানুষের কাছে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। শিক্ষার প্রসারে কয়েকটি হাইস্কুল, কলেজ নির্মাণ করেছি। জনগণের সেবায় আমি সম্পৃক্ত। এলাকার স্থানীয় সমস্যা সমাধানে আমি কাজ করেছি। এলাকার উন্নয়নে আমি সব সময় থাকার চেষ্টা করি। আগামীতে উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে জনগণ যদি আমাকে রায় দেন, অবশ্যই আমি শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বাসস্থান ও রাস্তাঘাটের উন্নয়নে কাজ করব।

অন্যদিকে তারুণ্যের শক্তিকে পুঁজি করে আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা বর্তমান সংসদ সদস্য ও সাবেক দুইবারের মন্ত্রী আলহাজ এম এ মান্নানের একমাত্র ছেলে অর্থনীতিবিদ সাদাত মান্নান অভি বলেন, আমার বাবাকে জগন্নাথপুর-শান্তিগঞ্জের জনগণ ভোট দিয়ে সংসদে পাঠিয়েছেন। আমার বাবা দুইবার মন্ত্রী ছিলেন। বর্তমানে আমার বাবা সংসদে আপনাদের প্রতিনিধি হয়ে কাজ করছেন। সাধারণ মানুষের সঙ্গে বাবার যে সম্পৃক্ততা এবং সাধারণ মানুষ যেভাবে তাকে ভালোবাসেন ঠিক সেভাবেই তার সন্তান হিসেবে আমাকেও জনগণ ভালোবাসেন। এছাড়া আমি নতুন প্রজন্মের প্রার্থী। নতুন ভোটাররা বিশেষত যুবক যারা আছেন তারা আমাকে সমর্থন করছেন এবং নির্বাচনে আমাকে যথেষ্ট সহযোগিতা করছেন। সর্বোপরি যেখানেই ভোট চাইতে গেছি সাধারণ মানুষের ভালোবাসা এবং সমর্থন পেয়েছি। আমি নির্বাচিত হলে শিক্ষার মানন্নোয়নে কাজ করব, জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারের গ্রামীণ স্বাস্থ্যসেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়ার জন্য কাজ করব। সে দিকে নজর রাখব। পাশপাশি জনগণের আত্মসামাজিক উন্নয়ন ও বেকারত্ব দূরীকরণে কাজ করে যাব।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App