×

সারাদেশ

রাজধানীতে গৃহবধূসহ ৪ জনের অস্বাভাবিক মৃত্যু

Icon

প্রকাশ: ২৬ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় গৃহবধূসহ ৪ জনের অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। যাত্রাবাড়ী শনির আখড়ার শেখদী এলাকায় ভবন থেকে লাফিয়ে পড়ে শারমিন আক্তার (৩৯) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়। বাড্ডা এলাকায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মাসুদ (২০) নামে এক যুবক মারা যান। এছাড়াও বাড্ডা ও যাত্রাবাড়ী এলাকায় আকাশ (২১) ও রোকন দেব (২৮) নামে দুই যুবক গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেন। গতকাল শনিবার সকাল ৬টা থেকে বিকাল পর্যন্ত এ ঘটনাগুলো ঘটে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া ঘটনাগুলোর সত্যতা নিশ্চিত করেন।

মৃত শারমিনের স্বামী গোলাম হোসেন জানান, স্ত্রী শারমিনের বাড়ি ফরিদপুর জেলার আলফাডাঙ্গা উপজেলার দিঘলবানা গ্রামে। বাবার নাম মৃত ওলিয়ার রহমান। দুই ছেলে ও স্ত্রীকে নিয়ে শনির আখড়া পূর্ব শেখদী এলাকায় একটি বাসায় ভাড়া থাকেন তারা। শনির আখড়ায় তার ছোট ফার্মেসি রয়েছে। আর্থিক অনটনের কারণে মাঝেমাধ্যেই তাদের ঝগড়া হতো। এসব কারণে গতকাল দুপুরের দিকে শারমিন তৃতীয় তলার ছাদ থেকে লাফিয়ে নিচে পড়ে। দেখতে পেয়ে তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

মাসুদের বড় ভাই মাজেদুল ইসলাম ও ঠিকাদার মো. টিটু জানান, বাড্ডা বটতলা এলাকার নির্মাণাধীন ৮ তলা ভবনে রড মিস্ত্রির কাজ করেন মাসুদ। গতকাল দুপুরে ভবনটির ২য় তলায় কাটার মেশিন দিয়ে রড কাটছিল মাসুদ। তখন মেশিনের তারের লিক থেকে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয় সে। এতে সেখানেই অচেতন হয়ে পড়ে। দেখতে পেয়ে দ্রুত তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। মৃত মাসুদের বাড়ি লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম থানার মমিনপুর জোংরা গ্রামে। তার বাবার নাম নজরুল ইসলাম। বর্তমানে নির্মাণাধীন ওই ভবনটিতেই থাকতো।

আকাশের ফুফু পায়েল আক্তার জানান, উত্তর বাড্ডা পানির পাম্প এলাকার একটি বাসায় বান্ধবীকে নিয়ে থাকতেন আকাশ। তারা দুজনেই একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চাকরি করে। গতকাল সকালে তিনি সংবাদ পান আকাশ গলায় ফাঁস নিয়েছেন। দ্রুত বাড্ডা জামতলার বাসায় গিয়ে দেখা যায়, আকাশ ফ্যানের সঙ্গে গলায় গামছা পেঁচিয়ে ঝুলে আছে। পরে ঝুলন্ত অবস্থা থেকে নামিয়ে হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তবে কী কারণে আকাশ আত্মহত্যা করেছেন এই বিষয়ে জানাতে পারেনি স্বজনরা।

ডিএসসিসির ময়লার গাড়ি চালকের আত্মহত্যা : যাত্রাবাড়ী থানার এসআই মো. কামরুজ্জামান জানান, গতকাল সকাল ৭টার দিকে খবর পেয়ে কাজিরগাঁওয়ের সাততলায় একটি মেস থেকে রোকন দেবের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এ সময় তিনি ফ্যানের সঙ্গে গলায় গামছা পেঁচিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় ছিলেন। জানা গেছে, মৃত রোকন দেব দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়িচালক ছিলেন। কাজিরগাঁওয়ের সাততলা বাসায় দুজন মেস করে থাকতেন। রুমমেট আল আমিনের রাত্রিকালীন ডিউটি ছিল। গত শুক্রবার দিবাগত রাতে রোকন একাই বাসায় ছিলেন। আল আমিন বাসায় এসে দরজা নক করেন। কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে থানায় খবর দেন। খবর পেয়ে বাসার দরজা ভেঙে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। এসআই জানান, রোকন দেবের বাড়ি হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল থানার সাহাপুর গ্রামে। বাবার নাম নকুল দেব।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App