×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

সারাদেশ

চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

Icon

প্রকাশ: ২৪ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

আশুগঞ্জ (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি : আশুগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মো. হানিফ মুন্সীর বিরুদ্ধে ভূমি অধিগ্রহণের ৬ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ওঠেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার আশুগঞ্জ প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী পরিবার এ অভিযোগ করে। সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী কুদ্দুছ মিয়ার পরিবারের পক্ষে তার নাতনী জুঁই লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। লিখিত বক্তৃতায় বলা হয়, উপজেলার চরচারতলা মৌজার ১ একর ভূমি আশুগঞ্জ নৌবন্দরের অভ্যন্তরীণ কন্টেইনার স্থাপনের জন্য সরকার অধিগ্রহণ করে। অবকাঠামো বিলসহ যার অধিগ্রহণ মূল্য নির্ধারণ করা হয় ২৬ কোটি ৮৪ লাখ ৪১ হাজার ৯৫৩ টাকা। মৈশার গ্রামের শাহজাহান মিয়া গং জাল দলিল ও ভুল বিএস খতিয়ানের মাধ্যমে অধিগ্রহণকৃত জমি তাদের নামে খারিজ করে নেন। ভুক্তভোগী পরিবার জমির প্রকৃত ওয়ারিশের কাছ থেকে ক্রয়সূত্রে বৈধ মালিক হওয়ায় আদালতে মামলা দায়ের করে। ফলে অধিগ্রহণের টাকা আটকে যায়। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ২০২১ সালের ২৮ নভেম্বর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. হানিফ মুন্সী ও বিএনপি নেতা জাকির হোসেন বিবাদমান দুপক্ষকে সমঝোতার মাধ্যমে অধিগ্রহণের টাকা উত্তোলন করে বণ্টন করে দেয়ার প্রস্তাব দেন। এ প্রস্তাব মেনে নিয়ে মীমাংসার স্বার্থে তারা মামলা তুলে নেন। এ সময় হানিফ মুন্সী ও জাকির হোসেন কাদের ৪ জনের কাছ থেকে নন-জুডিশিয়াল খালি স্ট্যাম্পে এবং স্ব স্ব অ্যাকাউন্টের ব্যাংক চেক (টাকার অঙ্ক ছাড়া) স্বাক্ষর করিয়ে নেন। পরে সমঝোতার মাধ্যমে শাহজাহান মিয়ার মাধ্যমে অধিগ্রহণের টাকা উত্তোলন করানো হয় এবং তাদের প্রাপ্য ৬ কোটি টাকা হানিফ মুন্সীর কাছে জমা রাখা হয়। কিন্তু হানিফ মুন্সী ওই টাকা ওয়ারিশদের না দিয়ে ৩ বছর ধরে নিজের কাছে রেখেছেন। ভুক্তভোগীরা বলেন, তারা মামলা মোকদ্দমায় টাকা-পয়সা খরচ করে বর্তমানে অতি কষ্টে দিন কাটাচ্ছেন। এই শোকে আলম খাঁ নামে মামলার বাদী স্ট্রোক করে মারা গেছেন। তার ছেলে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে রয়েছেন। সম্প্রতি বাধ্য হয়ে তারা আবারো আদালতের শরণাপন্ন হয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্য কুদ্দুছ মিয়া, জালাল খাঁসহ পরিবারের সদস্যরা।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App