×

সারাদেশ

জামানত হারাচ্ছেন তিনজন

হেভিওয়েট প্রার্থীদের পরাস্ত করে জয়ী হলেন ৪ প্রার্থী

Icon

প্রকাশ: ২৩ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

 হেভিওয়েট প্রার্থীদের পরাস্ত  করে জয়ী হলেন ৪ প্রার্থী

মো. সাজ্জাদ হোসেন শাহ্, সুনামগঞ্জ থেকে : হাওরের চার উপজেলা তাহিরপুর, বিশ্বম্ভরপুর, জামালগঞ্জ ও ধর্মপাশা পরিষদ নির্বাচনের ফলাফলে চারটিতেই আ.লীগের হেভিওয়েট প্রার্থীদের বিপুল ভোটে পরাজিত করে বিজয়ী হয়েছেন স্থানীয় ভোটারদের পছন্দের আ.লীগেরই প্রার্থীরা। এর মধ্যে তাহিরপুর উপজেলায় বেসরকারিভাবে নির্বাচিত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিনের কর্মীদের উপজেলার তিন ভোটকেন্দ্রে মারধরের অভিযোগ করেছেন আফতাব উদ্দিন। অন্যদিকে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা পরিষদের পরাজিত প্রার্থী উপজেলা আ. লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক দীলিপ কুমার বর্মণ ভোটের দিন রাতেই উপজেলার তিনটি ভোটকেন্দ্রে ভোট জালিয়াতির অভিযোগ করেছেন।

তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিন হেভিওয়েট প্রার্থীকে বিপুল ভোটে পরাজিত করে বিজয়ী হয়েছেন বাদাঘাট ইউনিয়ন আ.লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও একই ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন।

তারসঙ্গে প্রতিদ্ব›িদ্বতাকারী উপজেলা আ.লীগ সভাপতি হাজি আবুল হোসেন খা কাপ পিরিচ প্রতীকে পেয়েছেন ২৩ হাজার ৫৩০ ভোট।

এদিকে এ উপজেলার হেভিওয়েট, আলোচিত ও সমালোচিত তিন প্রার্থী হারাচ্ছেন জামানত। তারা হলেন- উপজেলা বিএনপির বহিষ্কৃত সহসভাপতি ও দুই বারেরর নির্বাচিত সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাসেম। তিনি পেয়েছেন ৪ হাজার ৪৬০ ভোট, যুক্তরাজ্য প্রবাসী আ.লীগ নেতা মিঠু পাল ৭৬১ ভোট, উপজেলা আ.লীগের জ্যৈষ্ঠ সহসভপতি অধ্যক্ষ আলী মর্তুজা পেয়েছেন মাত্র ৬২ ভোট।

জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি রেজাউল করিম শামীম মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ২৯ হাজার ১১১ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী উপজেলা বিএনপির বহিষ্কৃত সভাপতি নুরুল হক আফিন্দি পেয়েছেন ১৩ হাজার ৬৯৮ ভোট।

ধর্মপাশা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ধর্মপাশা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ মুরাদ ঘোড়া প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রাপ্ত ভোট ১৮ হাজার ৮৮৩। এ উপজেলায় হেভিওয়েট প্রার্থী উপজেলা আ.লীগের শামীম আহমেদ বিলকিসকে হারিয়ে বিজয়ী হয়েছেন তিনি। তার নিকটম প্রতিদ্ব›দ্বী উপজেলার সুখাইড় রাজাপুর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের পদ থেকে সদ্য পদত্যাগ করা ও জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আসাদুজ্জামান সেন্টুর সহধর্মিণী নাসরিন সুলতানা দিপা আনারস প্রতীকে নিয়ে পেয়েছেন, ১১ হাজার ৬২৫ ভোট।

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, উপজেলা আ.লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ধনপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম তালুকদার। তার প্রাপ্ত ভোট ১৬ হাজার ১৯২। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সম্পাদক দীলিপ কুমার বর্মণ পেয়েছেন ১৪ হাজার ৮০২ ভোট। গত মঙ্গলবার (২১ ) রাত পৌনে ১১টায় তিন উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটানিং কর্মকর্তারা এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App