×

সারাদেশ

আজিমপুর বড় দায়রা শরীফ

দুই উত্তরাধীকারীকে বঞ্চিত করার অভিযোগ

Icon

প্রকাশ: ১৬ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : রাজধানীর আজিমপুর বড় দায়রা শরীফের উত্তরাধীকারীর দুই এতিম সন্তানকে রাস্তায় নামিয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল বুধবার দুপুরে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনে (ক্র্যাব) আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এমন অভিযোগ করেছেন ওই এতিমদের মা ফারজানা হক লিমা। এ সময় তার দুই সন্তান সৈয়দ শাহ ফারহাদ উল্লাহ ইয়াসিন ও সৈয়দা তানজিয়া বেগম ত্রশী উপস্থিত ছিলেন। লিখিত বক্তব্যে লিমা বলেন, আজিমপুর বড় দায়রা শরীফের মোতয়াল্লি আমার শ্বশুর মৃত সৈয়দ শাহ ফজলুল্লাহের চার ছেলে দুই মেয়ে। তার মধ্যে আমার স্বামী সৈয়দ শাহ বারাতুল্লাহ রজতুলা ওরফে তানভীর। তাদের চার ভাইয়ের মধ্যে তিন ভাইয়ের কোনো সন্তান নেই। আমাদের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে; যা কোনোভাবেই মানতে পারছেন না আমার ভাসুর ও ননদরা। তারা আমাদের সম্পত্তি থেকে বিতাড়িত করতে নানামুখী ষড়যন্ত্র শুরু করেন। এর মধ্যে আমার স্বামী তানভীর মারা যান। এরপরই দুই এতিম সন্তানসহ আমার ওপর নির্যাতন শুরু হয়। আমি বিচারের জন্য মামলা দায়েরসহ রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীসহ ১২টি দপ্তরে একাধিকবার আবেদন করেছি। পরে ডিএমপি কমিশনারের কাছে আবেদন করা হলে তিনি লালবাগের তৎকালীন ডিসিকে বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দেন। এরপর ডিসি সেখানকার এসি আশফাক চৌধুরীকে নির্দেশ দিলে তিনি তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পান। এরপর সব ষড়যন্ত্র বন্ধ করে বাড়িসহ অন্যান্য বিষয়ে আমাদের প্রাপ্য বুঝিয়ে দেন। ভুক্তভোগী লিমা বলেন, গত ১০ মাস সেভাবেই চলছিল। সম্প্রতি ওই পুলিশ কর্মকর্তারা বদলি হয়ে যান। এরপর নতুন কর্মকর্তারা যোগদান করলে তাদের চোখের সামনেই আমাদের ওপর শুরু হয় অত্যাচার-নির্যাতন। গত ২৯ এপ্রিল আসামি আরফানা বেগম, আরিফুল ইসলাম সিফাত, জহিরুল ইসলাম বাচ্চু, ফজিলাতুন্নেসা তন্নী, আফসারী বেগম, আজগারী বেগম, মোস্তারি বেগম, এনাম উল্লাহ জোহায়ের, আসেম বিল্লাহ সোহেল, হুজাফফার, ইস্কানদার, রহমত, মাহফুজাসহ অজ্ঞাত ১০-১২ জন লালবাগ থানার এসআই রাজিবের সামনে আমাকে বেধড়ক মারধর করেন। আদালতে মামলা চলমান থাকার পরও তারা এতিম দুই সন্তানসহ আমাকে ঘর থেকে বের করে দিয়েছেন। স্বামীর অবর্তমানে যে বাড়ি ভাড়ার টাকা দিয়ে সংসার চালাতাম পুলিশের সহযোগিতায় সেই ভাড়াও বন্ধ করে দিয়েছেন আসামিরা। এখন স্কুল-ইউনিভার্সিটি পড়–য়া দুই সন্তান নিয়ে আমি দ্বারে দ্বারে ঘুরছি। তিনি আরো বলেন, আসামিরা আমাকে মিথ্যা মাদক মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়ার হুমকিও দিচ্ছেন। আমি এসব ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই। একইসঙ্গে আমার প্রাপ্য অধিকার বুঝে পেতে প্রসাশনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App