×

সারাদেশ

রামুতে চেয়ারম্যান পদে ২ চেয়ারম্যানের লড়াই

Icon

প্রকাশ: ১৬ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

রামুতে চেয়ারম্যান পদে  ২ চেয়ারম্যানের লড়াই
কামাল হোসেন, রামু (কক্সবাজার) থেকে : আগামী ২৯ মে তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত হবে রামু উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তারা হলেন, ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম ভূট্টো (মোটরসাইকেল প্রতীক), বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও রামু উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সোহেল সরওয়ার কাজল (আনারস প্রতীক) এবং মোহাম্মদ ইউসুফ ইকবাল। তবে এর মধ্যে কৌশলগত কারণে ডামি প্রার্থী হয়েছেন মোহাম্মদ ইউসুফ ইকবাল। তিনি প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম ভূট্টোর ছোট ভাই। তাই চেয়ারম্যান পদে মূল লড়াই হবে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে। সিরাজুল ইসলাম ভূট্টো রামু সদর ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আর সোহেল সরওয়ার কাজল রামু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুজনই স্ব স্ব পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন। সোহেল সরওয়ার কাজল গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার আশ্বাস পেয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেছিলেন। কিন্তু তার ছোট ভাই সাইমুম সরওয়ার কমল মনোনয়ন পাওয়ায় তিনি সেই নির্বাচনে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করতে পারেননি। তাই কাজল এবারো উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন। তিনি এর আগে তিনবার উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিয়ে দুইবার নির্বাচিত হয়েছেন, আর হেরেছেন এক বার। এবার জিতলে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করবেন তিনি। তার রয়েছে বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক ক্যারিয়ার। প্রায় দুই যুগেরই বেশি সময় ধরে তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছেন। পরিবারিকভাবেও তিনি রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান। তার পিতা মরহুম ওসমান সরওয়ার আলম চৌধুরী ছিলেন সাবেক সংসদ-সদস্য ও রাষ্ট্রদূত। এদিকে সিরাজুল ইসলাম ভূট্টো ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে দুই বছর মেয়াদ পূর্ণ হতে না-হতেই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করার লক্ষ্যে জনগণের মতামতের পরিপ্রেক্ষিতে চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগ করেন। ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের ইতিহাসে এক ব্যক্তি দুবার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার নজির নেই। তিনি একমাত্র ব্যক্তি যে কি না ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন পরিষদে সততা ও পরিচ্ছন্ন ইমেজের কারণে দুইবার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে নজির স্থাপন করেছেন। ধার্মিক, সদালাপী, নীতিবান ও সুন্দর আচরণের জন্য ভূট্টো সব শ্রেণির মানুষের কাছে সমান জনপ্রিয়। তবে মূল কথা হলো, নির্বাচনে সিরাজুল ইসলাম ভূট্টোর পেছনে রয়েছে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের হুইপ সাইমুম সরওয়ার কমলের মৌন সমর্থন। শুধু তাই নয় রামুর ১১ ইউনিয়নের অধিকাংশ ইউপি চেয়ারম্যান ভূট্টোর পক্ষে সরাসরি কাজ করছেন। তাই নির্বাচনী মাঠে ভূট্টো ভালো অবস্থানে রয়েছে বলে অনেকের অভিমত। এদিকে কাজলও নিজের জয়য়ের ব্যাপারে আশাবাদী। তবে কে হবেন উপজেলা চেয়ারম্যান তার জন্য অপেক্ষা করতে হবে আগামী ২৯ মে পর্যন্ত। উল্লেখ্য : রামুর উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৮৬ হাজার ৯৫১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৯৯ হাজার ১২৫ জন। নারী ভোটার ৮৭ হাজার ৮২৬ জন। ৬৪টি কেন্দ্রের ৪৩৪টি ভোটকক্ষে প্রথমবারের মতো ইভিএমে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App