×

সারাদেশ

ঝালকাঠিতে নির্বাচনী পথসভায় হামলা

প্রার্থীসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেপ্তার তিন

Icon

প্রকাশ: ১৬ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

মো. নাঈম হাসান ঈমন, ঝালকাঠি থেকে : সদর উপজেলার চেয়ারম্যান প্রার্থী সুলতান হোসেন খান ও তার নেতাকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনায় ১৭ জনের নামে মামলা করা হয়েছে। মামলায় অজ্ঞাত আরো ৮০-৯০ জনকে আসামি করা হয়েছে। এছাড়া ওই ঘটনায় ছাত্রলীগের তিন নেতাকে গ্রেপ্তার করেছেন পুলিশ। ওই ঘটনায় গতকাল বুধবার সকালে সুলতান হোসেন খানের ভাই মো. হেমায়েত উদ্দিন খান বাদী হয়ে সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। এর আগে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তিন ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেপ্তার করেছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম। মামলার আসামিরা হলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও উপজেলা আনারস প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী (বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান) মো. খান আরিফুর রহমান, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মো. রেজাউল কমির জাকির, জেলা যুবলীগের যুগ্মআহ্বায়ক মো. কামাল শরীফ, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হাফিজ আল মাহমুদ, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবদুল্লাহ আল মাসুদ মধু, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তরিকুল ইসলাম পারভেজ, জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আলফি শাহরুন শুভ, ফারসু, মো. ইদ্রিস শরীফ, বাবু, লিসান, সানি, রুবেল, মোস্তফা কামাল বাবুল, মো. ফাইজুল হক জুয়েল, আ. কাইউম, মুসাসহ অজ্ঞাত ৮০-৯০ জন। এছাড়া গ্রেপ্তার তিন ছাত্রলীগ নেতা হলেন শহরের কলেজ রোড এলাকার সোহরাব হোসেনের ছেলে জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আলফি শাহরুন শুভ, ইশতিয়াক আহমেদ ও তুহিন হাওলাদার। সুলতান হোসেনের কর্মী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গত মঙ্গলবার রাতে শহরতলীর কীর্ত্তিপাশা মোড়ের নির্বাচনী প্রচারণা সভা চলছিল। রাত ৮টার দিকে হঠাৎ করেই নির্বাচনী প্রতিপক্ষরা ছাত্রলীগের ৭০-৮০ জন নেতাকর্মী আমাদের ওপর হামলা চালায়। প্রথমে মারধর করা হয় সুলতান খান ভাইকে। এরপর চেয়ার ও লাঠি দিয়ে এলোপাথাড়ি বেধরক পিটুনি শুরু করে হামলাকারীরা। এতে উপস্থিত মো. সুলতান হোসেন খান, ইত্তেফাকের জেলা প্রতিনিধি শফিউল ইসলাম সৈকত, ডিবিসি নিউজের অলোক সাহা ও আমাদের বার্তার প্রতিনিধি কামরুজ্জামান সুইট, মুক্তিযোদ্ধা, নারী, শিশুসহ ২০ জনকে আহত করেন তারা। অভিযোগ অস্বীকার করে আনারস প্রতীকের চেয়াম্যান প্রার্থী খান আরিফুর রহমান বলেন, কারা এ হামলা করেছে তা আমি জানি না। মামলায় যে ঘটনার সময় উল্লেখ করা হয়েছে, তখন আমি পোনাবালিয়া ইউনিয়নে একটি পথ সভায় ছিলাম। আমি সেখানে ছিলাম না। এসব অভিযোগ পুরোটাই মিথ্যা। ঝালকাঠি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, হামলার ঘটনার মামলায় ৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারেরর চেষ্টা চলছে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. মহিতুল ইসলাম বলেন, ওখানে এমন ঘটনা হতে পারে আগেই জেনেছে পুলিশ। সভাস্থলে পুলিশ আগে থেকেই ছিল। তবে পুলিশ পর্যাপ্ত না থাকায় এমনটা হয়েছে বলেও শিকার করেন এই কর্মকর্তা। দ্বিতীয় ধাপে ঝালকাঠি সদরের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়াম্যান পদে মোট তিনজন প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন। আগামী ২১ মে দ্বিতীয় ধাপের এ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এদিন জেলা সদর ছাড়াও জেলার নলছিটি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেরও ভোটগ্রহণ হবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App