×

সারাদেশ

জৈন্তাপুর

বলাৎকার করায় গৃহশিক্ষককে খুন যুবক গ্রেপ্তার

Icon

প্রকাশ: ১৬ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

সাইফুল ইসলাম বাবু, জৈন্তাপুর (সিলেট) থেকে : ইফতেখার রশিদ মাহিকে (২২) দ্বিতীয় শ্রেণি থেকে প্রাইভেট পড়াতেন গৃহশিক্ষক মুক্তারুল হক। পঞ্চম শ্রেণিতে পড়াবস্থায় জোরপূর্বক ভয়ভীতি দেখিয়ে মাহিকে বলাৎকার করেন ওই শিক্ষক। এরপর থেকে নিয়মিত মাহিকে বলাৎকার করে আসছিলেন তিনি। এরপর যুবক বয়সে এসেও ওই ছাত্রকে জোরপূর্বক বলাৎকারের চেষ্টা করেন গৃহশিক্ষক মুক্তারুল। তাতে রাজি না হওয়ায় মাহির ছোট বোনকে ‘নষ্ট’ করার হুমকি দেন তিনি। এর প্রতিশোধ নিতে কাঠের বর্গা মাথায় আঘাত করে মুক্তারুলকে হত্যা করেন মাহি। নিহত মুক্তারুল হক জৈন্তাপুরের তেলীজুরী গ্রামের রহমত আলীর ছেলে। অভিযুক্ত মাহি একই গ্রামের বজলুর রশিদ শামীমের ছেলে। হত্যাকাণ্ডের দেড় বছর পর গত সোমবার পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটন করে মূল আসামি মাহিকে গ্রেপ্তার করে। পরে পিবিআইর জিজ্ঞাসাবাদে হত্যাকাণ্ডের এমন বর্ণনা দেয় মাহি। গত মঙ্গলবার পিবিআইয়ের সিলেট জেলা ইউনিট ইনচার্জ পুলিশ সুপার মুহাম্মদ খালেদ উজ জামান স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। পিবিআই সূত্রে জানা যায়, বলাৎকারের প্রতিশোধ নিতে এই হত্যাকাণ্ড চালিয়েছে মাহি। ২০২২ সালের ৪ ডিসেম্বর মুক্তারুলের বাড়ির সামনে রাস্তায় তার মরদেহ পাওয়া যায়। ওই ঘটনায় নিহতের পিতা বাদী হয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানায় ৬ জনকে আসামি করে ৪-৫ জনকে অজ্ঞাত করে পূর্ববিরোধের জেরে হত্যাকাণ্ড চালাতে পারেন এই মর্মে মামলা দায়ের করেন। থানাপুলিশ কিছু দিন তদন্ত করার পর তদন্তভার গ্রহণ করে পিবিআই সিলেট। পরে পিবিআই সিলেটের জেলা ইউনিট ইনচার্জ পুলিশ সুপার মুহাম্মদ খালেদ উজ জামানের নেতৃত্বে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই ঝলক মহন্ত তদন্ত করে ও তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার করে প্রকৃত হত্যা রহস্য উদ্ঘাটন করতে সক্ষম হন। পিবিআই সূত্রে আরো জানা যায়, গত সোমবার রাজধানীর মালিবাগ চৌধুরীপাড়া এলাকা হতে একটি গার্মেন্টস থেকে মাহিকে গ্রেপ্তার করে পিবিআই। এরপর জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায়, বলাৎকারের প্রতিশোধ নিতে সে তার প্রাইভেট শিক্ষককে হত্যা করেন। এ বিষয়ে পুলিশ সুপার মুহাম্মদ খালেদ উজ জামান বলেন, গ্রেপ্তারের পর গত মঙ্গলবার ইফতেখার রশীদ মাহিকে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে সে দোষ স্বীকার করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App