×

সারাদেশ

মধ্যনগরের রূপনগর আশ্রয়ণ প্রকল্প

হাওরের বুকে ‘একখণ্ড শহর’

Icon

প্রকাশ: ১১ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

 হাওরের বুকে ‘একখণ্ড শহর’
রাসেল আহমদ, মধ্যনগর (সুনামগঞ্জ) থেকে : রূপনগর আশ্রয়ণ প্রকল্প। স্থানীয়রা বলেন গুচ্ছগ্রাম। তবে দেখতে অনেকটা শহরের মতো। এ যেন হাওরের বুকে একখণ্ড শহর। সুনামগঞ্জের মধ্যনগর উপজেলার টাংগুয়ার হাওর পাড়ে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় দুর্গম হাওরের ভেতর গড়ে তোলা হয়েছে এই গ্রাম। ইট-সিমেন্ট ও রঙিন টিনের তৈরি একই ধাঁচের আধাপাকা ৬০টি পৃথক ঘরে ৬০টি পরিবারের আশ্রয় হয়েছে। এতে তাদের মধ্যে বয়ে যাচ্ছে আনন্দের ঢেউ। এখানে মাথা গোঁজার ঠাঁই পাওয়া মানুষের জীবনযাপনের ধরনও আগের চেয়ে অনেকটাই বদলে গেছে। উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বংশীকুন্ডা উত্তর ইউনিয়নের টাংগুয়ার হাওর পাড়ের গ্রাম রূপনগর। এই গ্রামের অদূরে হাওরের বুকে প্রায় ৮ বিঘা জমির উপর আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় দৃষ্টিনন্দন এ প্রকল্পে সুপেয় পানির ব্যবস্থা ছাড়াও প্রতিটি ঘরে রয়েছে আলাদা বাথরুম ও বারান্দা। ভিটে-মাটিহীন, বিধবা, ভিক্ষুক কিংবা সমাজের সব হারানো নারী-পুরুষকে লিখে দেয়া হয়েছে জমিসহ ঘরগুলো। সম্প্রতি ওই গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, সরকারিভাবে বুঝিয়ে দেয়া ৬০টি পরিবারই আশ্রয় নিয়েছে। বাসিন্দারা নানা সাংসারিক কাজে ব্যস্ত। কেউ রান্না করছেন, কেউ সেরে নিচ্ছেন গোসল। কেউ আবার পরিষ্কার করছেন ঘর। এখানে ঠাঁই পাওয়া জাহানারা বেগম (৫৫) শাড়ির আঁচলে চোখ মুছতে মুছতে বলেন, স্বামীকে হারিয়েছি অনেক আগেই। সন্তান সন্ততি নাই। আপন বলতে আমার কেউ নাই। জায়গা-জমি, ঘরবাড়ি কিছুই নাই আমার। এই ঘরটা সরকার দিছে। অন্তত রাইতে শান্তিতে ঘুমাইতে পারুম। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য দোয়া করি, আল্লাহ যেন উনারে গরিবের জন্য কাজ করার আরো তৌফিক দেয়। আবুল মিয়া (৭০) নামে প্রবীণ এক বাসিন্দা বলেন, এই ঘর পাইয়া মনে অইতাছে স্বাধীনতার স্বাদ পাইলাম। দেশ স্বাধীন অইছে বহু বছর আগে। কিন্তু আমার স্বাধীনতা আইল এখন। হাছেন বানু (৬৫) নামে এক বাসিন্দা বলেন, প্রধানমন্ত্রীর দয়ায় আজ আমি জমি আর ঘরের মালিক হইছি। আমার কিছুই ছিল না। এখন যেন সব আছে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নুরনবী তালুকদার জানান, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের পরামর্শে ওই আশ্রয়ণ প্রকল্প থেকে জেলা রাস্তা পর্যন্ত ৯০০ মিটার অলওয়েদার সংযোগ সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে। এতে গ্রামের মানুষ উপকৃত হওয়ার পাশাপাশি গ্রামটির সৌন্দর্যও বেড়েছে। মধ্যনগরের প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো. আব্দুল মোতালেব বলেন, প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের প্রতিটি ঘরের জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ২ লাখ ৬৪ হাজার টাকা। এই জায়গাটি সরকারি খাসভূমি ছিল। জায়গাটির উন্নয়ন করে এ গ্রাম গড়ে তোলা হয়েছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App