×

সারাদেশ

ছাগল ও ভেড়ার শেড নির্মাণে অনিয়ম

Icon

প্রকাশ: ০৮ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামের রৌমারীতে সরকারি অর্থায়নে ছাগল ও ভেড়ার পরিবেশবান্ধব শেড নির্মাণে ব্যাপক অনিয়মের ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন উপকারভোগীরা। তাদের অভিযোগ, নিজেদের একাউন্টে টাকা আসলেও উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা কৌশলে তাদের কাছ থেকে চেকের পাতায় সই নিয়ে টাকা উত্তোলন করে ছাগল ও মুরগির পরিবেশবান্ধব ঘর নির্মাণে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করে সিংহভাগ টাকা পকেটে পুরেছেন। উপকারভোগীদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। সূত্রের মতে, উপকারভোগীদের একাউন্টে প্রেরিত অর্থ দিয়ে তাদের নিজেদের পরিবেশবান্ধব ঘর তৈরির কথা থাকলেও প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ও স¤প্রসারণ কর্মকর্তা তাদের সে সুযোগ না দিয়ে নিজেরাই এসব ঘর তৈরির কাজ শুরু করেন। অনুসন্ধানে জানা যায়, কাজের শুরুতেই এলডিডিপি প্রকল্পের প্রস্তাবিত পরিবেশবান্ধব সেড নির্মাণে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার শুরু করলে ওই কর্মকর্তাদ্বয় উপকারভোগীদের ক্ষোভের মুখে পড়েন। জানা গেছে, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের আওতাধীন প্রাণিসম্পদ ও ডেইরি উন্নয়ন প্রকল্প (এলডিডিপি) কর্তৃক উপজেলা পর্যায়ে গঠিত প্রডিউসার গ্রুপে (পিজি) সদস্যদের জন্য ইনভেস্টমেন্ট সাপোর্টের আওতায় ছাগল ও ভেড়ার পরিবেশবান্ধব শেড (ঘর) নির্মাণের জন্য এলডিডিপি প্রকল্পের আওতায় ২০২২-২০২৩ অর্থবছরে এ বরাদ্দ দেয়। এসব পরিবেশবান্ধব শেড নির্মাণের জন্য ৯৭ জন উপকারভোগীর জন্য ২৫ হাজার করে এবং ৩৪ জন উপকারভোগীর জন্য ২০ হাজার টাকা বরাদ্দ থাকলেও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করে মাত্র সাত থেকে আট হাজার টাকায় প্রতিটি শেড নির্মাণ সম্পন্ন করা হয়। এভাবেই অবশিষ্ট সিংহভাগ টাকা পকেটে পুরেন উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা এটিএম হাবিবুর রহমান ও প্রাণিসম্পদ স¤প্রসারণ কর্মকর্তা মাহমুদন্নবী মিলন। এ ব্যাপারে প্রাণিসম্পদ সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মাহমুদন্নবী মিলন জানান, দেখাশোনার দায়িত্বে ছিলাম এর বেশি কিছু জানি না। রৌমারী উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা এটিএম হাবিবুর রহমান বলেন, সদস্যদের দ্বায়িত্ব দিলে এসব ঘরের কাজ ভালোভাবে হবে না তাই আমরা নিজেরাই করেছি। কোনো অনিয়ম হয়নি। কুড়িগ্রাম জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোনাক্কা আলীর সঙ্গে মোবাইলে কথা হলে তিনি বলেন, শেড নির্মাণে অনিয়ম হয়ে থাকলে লেখেন আমরা তদন্ত করে ব্যবস্থা নেব।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App