×

সারাদেশ

সুন্দরগঞ্জ

ঝুঁকিপূর্ণ কাঠের সেতু দিয়ে ৮ গ্রামের মানুষের যাতায়াত

Icon

প্রকাশ: ০৩ মে ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

ঝুঁকিপূর্ণ কাঠের সেতু দিয়ে ৮ গ্রামের মানুষের যাতায়াত
হাবিবুর রহমান হবি, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) থেকে : সুন্দরগঞ্জ উপজেলার বেলকা ইউনিয়নের তিস্তা খালের চৌধুরী খেয়াঘাটে ২০০ ফুট দীর্ঘ নড়বড়ে কাঠের সেতু ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে ৮ গ্রামের ২০ হাজার মানুষ। সরজমিন দেখা গেছে, এ ইউনিয়নের কিশামত সদর মৌজার পূর্ব দিকে কিশামত সদর, বেলকা নবাবগঞ্জ, পঞ্চানন্দ, জিগাবাড়ী, তালুক বেলকা, গাছবাড়ী, রামডাকুয়া ও বেকরির চর গ্রাম। আর এসব গ্রামে বসতি রয়েছে প্রায় ২০ হাজার মানুষের। স্কুল ও কলেজে পড়া শিক্ষার্থী রয়েছে শত শত। এসব মানুষ ও শিক্ষার্থীদের পারাপারের একমাত্র ভরসা ওই নড়বড়ে ঝুঁকিপূর্ণ কাঠের সেতু। প্রতিনিয়ত তারা ঝুঁকি নিয়ে সেতুটি পাড়ি দিয়ে প্রয়োজনের তাগিদে চলাচল করছেন উপজেলার বিভিন্ন এলাকাসহ বিভাগীয় শহর রংপুর অঞ্চলে। নড়বড়ে সেতুর কারণে চিকিৎসাসেবা নেয়ার মতো তাৎক্ষণিক কোনো উপায় নেই। অগ্নিকাণ্ডের মতো ঘটনা ঘটলে যেতে পারছে না দমকল বাহিনী। এদিকে বর্ষাকালে ওই ৮ গ্রাম উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে এবং গ্রামে বসবাসরতদের দুর্বিসহ জীবনযাপন করতে হয়। বন্ধ হয়ে যায় শিক্ষার্থীদের প্রাতিষ্ঠানিক লেখাপড়া। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ইব্রাহিম খলিল্লাহ বলেন, কাঠের সেতুটি আমি প্রতি বছর সংস্কার করে দিলেও স্থায়ীভাবে ব্রিজ নির্মাণের কোনো লক্ষণ দেখছি না। ওই স্থানে স্থায়ী ব্রিজ নির্মাণের জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরে যোগাযোগ ও আবেদন নিবেদন করেও কোনো লাভ হচ্ছে না। মানুষজন ও শিক্ষার্থীরা প্রতিদিন জীবনের ঝুঁকি নিয়েই সেতুটি পাড়ি দিয়ে তাদের প্রয়োজন মেটাচ্ছেন। স্থায়ীভাবে ব্রিজ নির্মাণের জন্য সংশ্লিষ্টদের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি। উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুল মান্নাফ বলেন, এসকেএস এনজিও ওই স্থানে ব্রিজ নির্মাণের জন্য কথা দিয়েছে। অপেক্ষা করি তারা ব্রিজটি নির্মাণ করে কিনা। উপজেলা নির্বাহী অফিসার তরিকুল ইসলাম বলেন, বেলকা ইউপি চেয়ারম্যান ব্রিজ নির্মাণের জন্য একটি আবেদন দিয়েছিলেন। তিনি এসকেএস এনজিওকে বিষয়টি দেখার জন্য মার্ক করে দিয়েছেন।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App