×

সারাদেশ

আইনমন্ত্রী

আইনগত সহায়তা করুণা নয় বরং অধিকার

Icon

প্রকাশ: ২৯ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, অসচ্ছল নাগরিকরা আইনগত সহায়তা পাবেন, এটাই স্বাভাবিক। আইনগত সহায়তা পাওয়া তার প্রতি করুণা নয় বরং এটা তার অধিকার। দরিদ্র-অসহায় নাগরিকদের আইনগত সহায়তা পাওয়ার সঙ্গে দেশের আইনের শাসন, ন্যায়বিচার, মানবাধিকার ও সামাজিক সমতা জড়িত। গতকাল রবিবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। ‘স্মার্ট লিগ্যাল এইড, স্মার্ট দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ এই প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে আইন ও বিচার বিভাগ এবং জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থা এ কর্মসূচির আয়োজন করে। ঢাকার যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ তামান্না ফারাহ্র সঞ্চালনায় আইন ও বিচার বিভাগের সচিব মো. গোলাম সারওয়ারের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার পরিচালক মোহাম্মদ আল মামুন। অনুষ্ঠানে দুজনকে সেরা লিগ্যাল এইড অফিসার ও প্যানেল আইনজীবী হিসেবে পুরস্কৃত করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে সারাদেশের জেলা পর্যায়ে র‌্যালি, আলোচনাসভা, পথ প্রচার, লিগ্যাল এইড মেলা, ক্লায়েন্ট-আইনজীবী যৌথ সভা, সেরা লিগ্যাল এইড অফিসার ও সেরা প্যানেল আইনজীবী পুরস্কার, ম্যাগাজিন/স্যুভেনির/ দেয়ালিকা প্রকাশ, আলোকচিত্র প্রদর্শন, প্রচার ও প্রকাশনা সামগ্রী বিতরণসহ বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে। আইনমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশের মূল সংবিধানেই গণতন্ত্র, মানবাধিকার, সামাজিক সুবিচার ও সমতার বিধানাবলিসহ বিচার প্রক্রিয়ায় ধনী-দরিদ্র নির্বিশেষে সব নাগরিকের প্রবেশাধিকারের বিধান সন্নিবেশ করে গেছেন। ২০০১ সালের মাঝামাঝি থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত এই সাড়ে সাত বছর শেখ হাসিনা সরকারে না থাকায় তাদের এই অধিকার অন্ধকারে নিমজ্জিত হয়ে পড়ে। তিনি আইনি সহায়তা কার্যক্রম রাজধানী থেকে তৃণমূল পর্যন্ত সম্প্রসারণ করতে যুগান্তকারী বহু পদক্ষেপ নেন। এর মধ্যে অন্যতম হলো রাজধানী ঢাকায় প্রধান কার্যালয় স্থাপন করাসহ দেশের ৬৪টি জেলা, উপজেলা, ইউনিয়নে লিগ্যাল এইড ও চৌকি এবং বিশেষ করে শ্রম আদালতেও লিগ্যাল এইড কার্যক্রম শুরু।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App