×

সারাদেশ

বিদ্যুৎ অফিস ঘেরাও

রাঙামাটিতে ভূতুড়ে বিল দিয়ে গ্রাহকদের হয়রানি

Icon

প্রকাশ: ২৯ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

নন্দন দেবনাথ, রাঙামাটি থেকে : বিদ্যুৎ বিভাগের ভূতুড়ে বিলে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন রাঙামাটি পৌর এলাকার ১ নম্বর ওয়ার্ডের ৩ হাজার বিদ্যুৎ গ্রাহক। হয়রানির প্রতিবাদে রাঙামাটির বিদ্যুৎ অফিস ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেছেন ভুক্তভোগীরা। বিদ্যুৎ বিভাগ ডিজিটাল মিটার পরিবর্তন করে প্রি-পেইড মিটার স্থাপন করে। এতে প্রথম দফায় পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইসলামপুর, শরীয়তপুর, পুরানবস্তি এলকায় ৩ হাজার গ্রাহকের ঘরে স্থাপন করা হয় প্রি- পেইড মিটার। গ্রাহকরা বলেন, নিয়মিত যে বাড়িতে ৫শ থেকে ১ হাজর টাকা বিল আসত সেখানে হঠাৎ করে কাউকে ৫০ হাজার কাউকে ৩০ হাজার টাকার বিল দেয়া হয়েছে। পুরানো মিটার অনুযায়ী মার্চের বিল বাবদ এ বিল দেয়া হয়। এতে অসহায় হয়ে পড়েছেন শত শত শ্রমজীবী মানুষ। এমন ভূতুড়ে বিলের প্রতিবাদে গতকাল রবিবার সকালে শহরের ভেদভেদিস্থ বিদ্যুৎ অফিস ঘেরাও করে বিক্ষোভ করে স্থানীয় শতাধিক ভুক্তভোগী। এ সময় তারা মনগড়া বিল করার জন্য বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দায়ী করেন। একই সঙ্গে এ বিল পরিশোধে অপারগতা প্রকাশ করেন। পেশায় জেলে, মাছি ও নি¤œ আয়ের মানুষ হওয়ায় এই বিল পরিশোধ করা সম্ভব নয় বলে জানান ভুক্তোভোগীরা। তারা বলেন, দরকার হলে আমাদের মেরে ফেলেন। আমাদের এই ধরনের হয়রানি না করে দেশ থেকে বের করে দেন। আমরা নিয়মিত বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করার পরও নতুন করে হাজার হাজার টাকা বিদ্যুৎ বিল দিয়ে আমাদের হয়রানি করা হচ্ছে। এই বিল আমরা কোথা থেকে দেব। প্রতি মাসে আমরা বিল পরিশোধ করে আসছি। আমাদের কোনো বকেয়া নেই। নতুন ডিজিটাল মিটার লাগানোর পর তারা আমাদের থেকে অবৈধভাবে অর্থ আত্মসাতের জন্য মিটারে বিল জমা আছে জানিয়ে টাকা দাবি করছে। আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে এর প্রতিকার চাই। গ্রাহকরা লিখিত অভিযোগ দিলে বিল পর্যালোচনাসহ সংশোধনে সহায়তা করা হবে বলে জানান বিদ্যুৎ বিভাগের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী। তিনি বলেন, আসলে ভুলটা আমাদের কর্মীদের। তারা বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিদ্যুতের সঠিক রিডিং ঠিক মতো কালেকশন না করার কারণে গ্রাহকদের মিটারে বিদ্যুৎ বিল জমা পড়ে আছে। যখনই নতুন ডিজিটাল মিটার দেয়া হয়েছে ঠিক তখনই এই সমস্যা ধরা পরে। তিনি বলেন, আমরা তাদের সহায়তা করতে প্রস্তুত রয়েছি। কথা বলে সমন্বয় করে গ্রাহকের যেটাতে সুবিধা হয় সেইভাবে আমরা সহায়তা করব।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App