×

সারাদেশ

ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে দুর্ঘটনা

বাস আটকে ৬০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ আদায় জাবি শিক্ষার্থীদের

Icon

প্রকাশ: ২৮ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

জাবি প্রতিনিধি : ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে এক দুর্ঘটনায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) এক শিক্ষার্থীর বোনের প্রাইভেট কারের সামনের অংশ দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়ায় ইতিহাস পরিবহনের ৮টি বাস আটকে ৬০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ আদায় করেছেন একদল শিক্ষার্থী। টাকা আদায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ইতিহাস পরিবহনের চেকার জসিম। গতকাল শনিবার সকাল সোয়া ৯টার দিকে সাভারের নিউমার্কেট এলাকায় ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আরিচাগামী লেনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। পরে বিষয়টি ওই শিক্ষার্থী তার বন্ধুদের জানালে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকসংলগ্ন ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে এসে ইতিহাস পরিবহনের ৮টি বাস আটক করে। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে মালিক কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে ৬০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ আদায় করে বাসগুলো ছেড়ে দেয়া হয়। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, গতকাল শনিবার সকালে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ৪৭ ব্যাচের এক শিক্ষার্থী তার বড় বোনের প্রাইভেটকারে করে ক্যাম্পাসে আসছিলেন। প্রাইভেট কারের ঠিক সামনে সাভার পরিবহনের একটি বাস এবং তার সামনে ইতিহাস পরিবহনের একটি বাস চলছিল। সাভারের নিউমার্কেট এলাকায় এলে হঠাৎ করে ইতিহাস পরিবহনের বাসটি ব্রেক করে। এ সময় গতি নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে পেছনে থাকা সাভার পরিবহনের বাসটি ইতিহাস পরিবহনের বাসে এবং ওই শিক্ষার্থীর বোনের গাড়িটি সাভার পরিবহনের বাসে ধাক্কা দেয়। এর ফলে গাড়িটির সামনের অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ওই শিক্ষার্থী বলেন, ‘এত বড় একটি ঘটনার পর বাসটি না দাঁড়িয়ে দ্রুত গতিতে চলে যায়। এক পর্যায়ে আমার প্রাইভেট কারের চালক ইতিহাস পরিবহনের বাসটি থামিয়ে এমন হার্ড ব্রেক করার কারণ জানতে চাইলে বাসের চালক এবং সহযোগী উল্টো খারাপ ব্যবহার করে হুমকি দিয়ে বাস থেকে নামিয়ে দেয়। পরে আমার বন্ধু-বান্ধবদের খবর দিলে তারা ডেইরি গেটে এসে বাস আটকায়।’ বাস আটকের বিষয়ে জানতে চাইলে ইতিহাস পরিবহনের একটি বাসের চালক তোফাজ্জল হোসেন বলেন, ‘আমাদের একটি বাস হার্ড ব্রেক করায় এক শিক্ষার্থীর প্রাইভেট কার ধাক্কা খেয়েছে। কিন্তু সেই বাস আটক না করে আমাদের বাসগুলো আটকে রেখেছে। আমাদের যিনি চেকার আছেন, তাকে জানিয়েছি।’ ইতিহাস পরিবহনের চেকার মো. জসিম বলেন, ‘যে বাসটি হার্ড ব্রেক করেছে সেটির নম্বর ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী দিয়েছেন। বাসটি শনাক্ত করার জন্য রোডে যারা দায়িত্বে আছে তাদের বলেছি। বাসের মালিকের সঙ্গে যোগাযোগ করে বিষয়টি সমাধান করব বলে ক্যাম্পাসে এসেছি।’ এ বিষয়ে জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক আলমগীর কবিরের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App