×

সারাদেশ

শীতলক্ষ্যা নদীতে কচুরিপানা

কাপাসিয়া-তরগাঁওয়ে খেয়া পারাপার ব্যাহত

Icon

প্রকাশ: ২৭ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাপাসিয়া (গাজীপুর) প্রতিনিধি : শীতলক্ষ্যা নদীর কাপাসিয়া-তরগাঁও অংশে কচুরিপানার জন্য খেয়া পারাপার ব্যাহত হচ্ছে। কাপাসিয়া উত্তরের ৮ ইউনিয়ন থেকে হাজার হাজার মানুষ খেয়া নৌকা দিয়ে নদী পারাপার হতো। গত ২ মাস ধরে এ নদীতে কচুরিপানার জন্য পারাপার দারুণভাবে ব্যাহত হচ্ছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ কে এম লুৎফর রহমানকে মোবাইল ফোনে ও মৌখিকভাবে বিষয়টি অবহিত করা হলেও কার্যকর ভূমিকা নিচ্ছে না বলে কাপাসিয়া বাজারের এক ব্যবসায়ী জানান। তিনি উপজেলা পরিষদ ও জেলা পরিষদের মাধ্যমে সমাধান করতে বলেন। কাপাসিয়ায় শীতলক্ষ্যা নদী দিয়ে দুই পাড়ের হাজারো যাত্রী পারাপার হতো একসময়। কালের বিবর্তনে ফকির মজনু শাহ সেতু হওয়ার পর থেকে খেয়া নৌকার যাত্রী কমতে থাকে। এ বছর ফেব্রুয়ারি মাস থেকে এপ্রিল মাস পর্যন্ত পুরো নদী কচুরিপানায় আবদ্ধ থাকায় যাত্রীরা বিকল্প পথে শীতলক্ষ্যা পার হয়ে তাদের দৈনন্দিন কাজকর্ম করছেন। সরজমিন দেখা যায়, খেয়াঘাটে ৩-৪টি নৌকা নিয়ে মাঝিরা দাঁড়িয়ে আছেন। যাত্রী সংখ্যা খুবই কম। ৩০ থেকে ৪৫ মিনিট সময় নিয়ে এপাড় থেকে ঐপাড়ে যাচ্ছেন মাঝিরা। উপজেলার তরগাঁও ইউনিয়নের মৈশন গ্রামের এক নারী বলেন, আমরা অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকে নদী পার হয়েছি। কচুরিপানার জন্য আর এখান দিয়ে আসা সম্ভব নয়। তরগাঁও গ্রামের খেয়া নৌকার মাঝি বাদল মিয়া আক্ষেপ করে বলেন, আগে আয় রোজগার ভালো হতো। এখন দিনকাল খুবই খারাপ। মনে হয় নৌকা চালানো বাদ দিতে হবে। প্রবীণ মাঝি অর্জুন চন্দ্র মণি বলেন, নদীতে পানি কম থাকায় এবং প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে কচুরিপানা বেড়েছে। আরো ৩ মাস কচুরিপানা থাকতে পারে। এ ব্যাপারে গাজীপুর জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার মুদাচ্ছির বিন আলীর সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App