×

সারাদেশ

বিইউপি শিক্ষিকাকে যৌন হয়রানি

রিমান্ড শেষে কারাগারে অভিযুক্ত শিক্ষক কামাল

Icon

প্রকাশ: ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০০ এএম

প্রিন্ট সংস্করণ

কাগজ প্রতিবেদক : বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) এক শিক্ষিকাকে যৌন হয়রানির অভিযোগে শান্ত মারিয়াম ইউনিভার্সিটির সহকারী অধ্যাপক রশি কামালকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। শুনানি শেষে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সাদ্দাম হোসেন এ আদেশ দেন। গতকাল সোমবার ৪ দিনের রিমান্ড শেষে ওই শিক্ষককে আদালতে হাজির করে পুলিশ। এরপর মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। আদালত আবেদনটি মঞ্জুর করেন। পল্লবী থানার আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা পুলিশের এসআই সেলিম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এর আগে অনলাইনে উত্যক্ত ও ধর্ষণের হুমকির অভিযোগে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ঢাকার পল্লবী থানায় মামলা করেন ওই শিক্ষিকা। এজাহারে তিনি উল্লেখ করেন, ‘২০২৩ সালের আগস্ট মাসে আমার একটি গবেষণা ইন্দোনেশিয়ান জার্নাল অব সোশ্যাল রিসার্চ নামক জার্নালে প্রকাশিত হয়। গত ১৭ মার্চ বর্তমান বাসায় অবস্থানকালে আমার ব্যক্তিগত ইমেইলে প্রকাশিত গবেষণাপত্রটি চেয়ে আসামি রশি কামাল তার মেইল থেকে অনুরোধ করেন। আমি গবেষণাপত্রটি তার মেইলে পাঠিয়ে দেই। আসামি গবেষণাপত্রটি পড়ে এবং আমার খুব প্রশংসা করে একটি কনফারেন্সে প্রকাশের জন্য আমার সঙ্গে যৌথভাবে গবেষণা করার আগ্রহ প্রকাশ করেন। আমার কাছে আসামি সিভি চাইলে আমি তা দিই।  এরপর তিনি আমার সঙ্গে স্কাইপিতে ভিডিও কলে কথা বলার জন্য বারবার অনুরোধ করেন, কিন্তু আমি ভিডিও কলে কথা বলতে রাজি হইনি। এরপর গত ২৯ মার্চ রাত ১টা ৪ মিনিটে আসামি আমাকে ফোন দেন এবং যৌন হয়রানিমূলক কথাবার্তা বলে ফোন রেখে দেন। এরপর বিভিন্ন সময়ে আসামির হোয়াটসঅ্যাপ নম্বর থেকে আমার হোয়াটস অ্যাপ নম্বরে অশ্লীল যৌন হয়রানিমূলক কথাবার্তা বলে ধর্ষণ করার হুমকি দেয়। এ সময় হোয়াটসঅ্যাপে পর্নো ছবি পাঠান।’

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App