স্বপ্নজয়ের পদ্মা সেতুর নিরাপত্তায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী

আগের সংবাদ

হাওর জনপদে স্বাস্থ্যসেবা ‘নেই’

পরের সংবাদ

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন : বিভাগীয় শহরে আনন্দ-উচ্ছ¡াস

প্রকাশিত: জুন ২৬, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জুন ২৬, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ ডেস্ক : স্বপ্ন হলো সত্যি। আর্থিক, প্রকৌশল এবং রাজনৈতিক- ত্রিমুখী চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে বহুল কাক্সিক্ষত বাঙালির স্বপ্ন ও সাহসের পদ্মা সেতুর শুভ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল শনিবার বেলা ১২টার দিকে লাখো মানুষের পদচারণায় মুখর ও খুশির জোয়ার লাগা প্রমত্তা পদ্মাপ্রান্তে সব অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে উদ্বোধন করা হয় এই সেতুর। সেতু উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে আনন্দ-উচ্ছ¡াসের জোয়ারে ভাসছে গোটা দেশ। স্বপ্ন পূরণের ঝিলিক লাগে প্রতিটি মানুষের মুখে। পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে বিভাগীয় শহরগুলোতেও বর্ণাঢ্য উৎসবের আয়োজন করা হয়। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-
বরিশাল : পদ্মা সেতুর উদ্বোধনকে উদযাপন করতে বরিশালে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করে জেলা ও বিভাগীয় প্রশাসন। সকালে রেঞ্জ ডিআইজি, মেট্রোপলিটন পুলিশ ও জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে পৃথক পৃথক র‌্যালি করে শিল্পকলা একাডেমিতে গিয়ে মিলিত হয়। সেখানে আলোচনা সভা, পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বড় পর্দায় সরাসরি উপভোগ এবং দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার মো. আমিন-উল-আহসান।
খুলনা : পদ্মা সেতু উদ্বোধনের জাতীয় অনুষ্ঠানমালা খুলনা জেলা স্টেডিয়ামে বড় পর্দায় সরাসরি প্রদর্শন করা হয়। উদ্বোধনের সঙ্গে সঙ্গে খুলনায় নানা রঙের বেলুন উড়িয়ে মুহূর্তটি উদযাপন করা হয়। এতে জেলা প্রশাসন, বিভাগীয় প্রশাসন, বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ অংশ নেন। পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে খুলনা শহর ও স্টেডিয়ামসংলগ্ন এলাকা রঙিন পতাকা, ব্যানার, ফেস্টুন দ্বারা সুসজ্জিত করা হয়। সকাল সাড়ে ৮টায় খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে এক আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হয়। নগরীর শিববাড়ী মোড় থেকে শুরু এই আনন্দ শোভাযাত্রা বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে হাদিস পার্কে এসে শেষ হয়।
চট্টগ্রাম অফিস : পদ্মা সেতু উদ্বোধনের মাহেন্দ্রক্ষণকে স্মরণীয় করে রেখেছে চট্টগ্রামবাসীও। দীর্ঘদিনের স্বপ্ন বাস্তবায়ন হওয়ায় বাঁধভাঙা উৎসব ও বর্ণাঢ্য এই আয়োজনে শামিল হয় চট্টগ্রামের আপামর মানুষ। আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠন চট্টগ্রামের সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন অফিস এবং নানা সংগঠনের উদ্যোগে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠান সরাসরি স¤প্রচারসহ বিভিন্ন আয়োজন করা হয়।
গতকাল সকাল ৯টায় চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকা থেকে বাস, ট্রাকসহ নানা যানে নগরের বিভিন্ন স্থান প্রদক্ষিণ করে নগরবাসীকে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের কথা জানানো হয়। পরে সেখান থেকে বাদ্য বাজিয়ে শুরু হয় শোভাযাত্রা। শোভাযাত্রাটি নগরের বিভিন্ন প্রান্ত ঘুরে জেলা এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে এসে শেষ হয়। পরে স্টেডিয়ামে বড় পর্দায় সেতুর উদ্বোধন দেখার পাশাপাশি দোয়া অনুষ্ঠানে অংশ নেন হাজারো মানুষ। এতে জেলা প্রশাসন, বিভাগীয় প্রশাসন, বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ অংশ নেন। প্রধানমন্ত্রীর সেতু উদ্বোধনের পর মিষ্টিমুখ করেন অংশগ্রহণকারীরা।
নগরীর কাজির দেউড়িতে ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন হলে আয়োজন করা হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের। এতে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী। চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, পেশাজীবী নেতা এবং চসিকের ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।
চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নগরীর এম এ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন জিমনেশিয়াম চত্বরে আলোচনা সভা, প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সকালে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমানের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাফফর আহমেদ, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের প্রশাসক এম এ সালাম, জেলা পুলিশ সুপার এস এম রশিদুল হক, নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন, শিল্পপতি সুফী মিজানুর রহমানসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ অংশ নেন।
পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে আনন্দ শোভাযাত্রা করেছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) কর্তৃপক্ষ। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তারা অংশগ্রহণ করেন। পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্সের আয়োজনে গতকাল সকালে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে আলোচনা সভা, খতমে কুরআন ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের উদ্যোগেও আলোচনা সভা, দোয়া ও শোকরানা মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সিলেট ব্যুরো : স্মরণকালের সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যায় আক্রান্ত হলেও সীমিত আকারে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনে শামিল হয়েছে সিলেটবাসী। সারাদেশের মতো নিজেদের দুঃসময় ভুলে উৎসবে মুখর হয়ে উঠেছে সিলেট নগরী। গতকাল সকালে সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে বড় পর্দায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক পদ্মা সেতুর উদ্বোধন ও সুধী সমাবেশ সরাসরি দেখানো হয়। এ সময় সেখানে জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিকুর রহমান চৌধুরী, পুলিশের সিলেট রেঞ্জ ডিআিইজি মফিজুর রহমান, সিলেটের জেলা প্রশাসক মজিবুর রহমান, জেলা পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
মূল উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার পর সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে বেলুন উড়ান অতিথিরা। বন্যা পরিস্থিতির কারণে সীমিত পরিসরে উৎসবের আয়োজন করা হয়। সিলেট মহানগর পুলিশের উদ্যোগে পুলিশ লাইন্সে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠান বড় পর্দায় প্রদর্শন করা হয়। এ সময় সিলেট মহানগর পুলিশের কমিশনার মো. নিশারুল আরিফসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
ময়মনসিংহ : পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে গতকাল সকালে ময়মনসিংহ নগরীর ভাষা সৈনিক রফিক উদ্দিন ?ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে জেলা প্রশাসন। এতে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মো. এনামুল হক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পুলিশের ময়মনসিংহ রেঞ্জের ভারপ্রাপ্ত ডিআইজি শাহ আবিদ হোসেন। স্টেডিয়ামে বড় পর্দার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠান প্রদর্শন করা হয়। এই অনুষ্ঠান সরাসরি উপভোগ করেন বিভিন্ন শ্রেণিপেশার কয়েক হাজার মানুষ। প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর স্থানীয়ভাবে জেলা পর্যায়েও বেলুন উড়িয়ে পদ্মা সেতুর শুভ উদ্বোধন উদযাপন করা হয়।
রংপুর : জেলা প্রশাসনের আয়োজনে সরাসরি সম্প্রচারিত স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান রংপুর জিলা স্কুল মাঠে বড় পর্দায় প্রদর্শন করা হয়। এ সময় রংপুর প্রান্তে উপস্থিত ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার আবদুল ওয়াহাব ভূঞা, পুলিশ রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্য, মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোহা. আবদুল আলীম মাহমুদ, জেলা প্রশাসক আসিব আহসান, পুলিশ সুপার ফেরদৌস আলী চৌধুরী, সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়র মাহমুদুর রহমান টিটু, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাফিউর রহমান সফিসহ বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তারা।
এদিকে বহুল প্রতীক্ষিত স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. হাসিবুর রশীদের নেতৃত্বে আনন্দ র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপউপাচার্য প্রফেসর ড. সরিফা সালোয়া ডিনা উপস্থিত ছিলেন। পরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে ফুলেল শ্রদ্ধা জানানো হয়। বড় পর্দায় দেখানো হয় সরাসরি সম্প্রচার অনুষ্ঠান।
রাজশাহী : শত শত মানুষ জড়ো হন নগরীর রেলগেট শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান চত্বরে। সেখান থেকে অনুষ্ঠানে অংশ নিতে একত্রিত হন মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পদ্মা সেতু উদ্বোধনের দৃশ্য বড় পর্দায় দেখেন তারা।
এ সময় বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসন, বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ অংশ নেন। প্রধানমন্ত্রীর সেতু উদ্বোধনের পর মিষ্টিমুখ করেন অংশগ্রহণকারীরা। পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের মূল অনুষ্ঠানের সঙ্গে ভার্চুয়ালি জনসাধারণ উপভোগের পর সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করে ব্যান্ড দল ‘ত্রি-মার্তিক’।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়