নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস আজ

আগের সংবাদ

কালো টাকার অবাধ সুযোগ! : বিদেশে পাচার হওয়া অর্থ ফেরাতে বিরল উদ্যোগ, কর দেয়ায় নিরুৎসাহিত হবে সৎ করদাতারা

পরের সংবাদ

মার্কিন নেতৃত্ব : এশিয়ায় অর্থনৈতিক নতুন জোট গঠনে সিপিবির উদ্বেগ

প্রকাশিত: মে ২৯, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: মে ২৯, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক : মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে ‘ভারত প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে অর্থনৈতিক কাঠামো (আইপিইএফ)’ নামে নতুন অর্থনৈতিক জোট গঠন করায় বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।
সিপিবির সভাপতি মোহাম্মদ শাহ্ আলম এবং সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স গতকাল শনিবার এক বিবৃতিতে বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, ভারত, দক্ষিণ কোরিয়া, মালয়েশিয়া এবং সিঙ্গাপুরসহ এশিয়ার ১৩টি দেশ নিয়ে মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ যে নয়া জোট গঠন করেছে তা স্পষ্টতই দুরভিসন্ধিমূলক। সবচেয়ে উদ্বেগের কথা হলো, বাংলাদেশকে এই জোটে যুক্ত করতে নানাভাবে চাপ দেয়া হচ্ছে।
বিবৃতিতে সিপিবি নেতারা বলেন, জাপান সফরকালে এই জোটের ঘোষণা দিতে গিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তাদের মন্দ অভিপ্রায় অনেকটাই প্রকাশ করে ফেলেছেন। সেটি হলো, এশিয়ার বাণিজ্যে মার্কিনের বিশেষ আধিপত্য এবং সেটি উৎপাদনের জোরে নয়, বরং ক্ষমতার জোরে। শুরুতেই এই জোটের আলোচনায় চীনকে বাইরে রাখা হয়েছে। বাদ দেয়া হয়েছে আসিয়ানের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য রাষ্ট্র কম্বোডিয়া, লাওস, মিয়ানমারকে। এ জোটের ঘোষণায় আরো বলা হয়েছে, তারা জোটভুক্ত দেশগুলোর সাপ্লাই চেইন, জ্বালানি খাত, বাণিজ্য কর, শ্রম আইন ইত্যাদি বিষয়ে তদারকিমূলক ভূমিকা রাখবে। ফলে বেশ পরিষ্কারভাবেই বোঝা যাচ্ছে যে জোটের সদস্য রাষ্ট্রসমূহের মধ্যে কার কর্তৃত্ব প্রধান্য পাবে। শুধু তাই নয়, বাণিজ্য জোটের নামে এটি আসলে এক ধরনের রাজনৈতিক জোট। যার লক্ষ্য হলো, ইউক্রেন যুদ্ধের নয়া প্রেক্ষাপটে চীন এবং রাশিয়ার বিপরীতে তাদের নিজস্ব শক্তিবলয় গড়ে তোলা। একই সঙ্গে এশিয়ায় ন্যাটোর দীর্ঘমেয়াদি উপস্থিতির প্রেক্ষাপট শক্তিশালী করা এবং এক পর্যায়ে চীনের বেল্ট এন্ড রোড প্রকল্পকে বিঘিœত করা। যা নিশ্চিতভাবেই এশিয়ায় বিরাট সংঘাতের জন্ম দেবে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়