নতুন রাজনৈতিক দল নিবন্ধনের গণবিজ্ঞপ্তি

আগের সংবাদ

অনুমোদনহীন ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার : অভিযানে বন্ধ অনেক প্রতিষ্ঠান

পরের সংবাদ

সবজির দাম অপরিবর্তিত ডিমের বাজার চড়া

প্রকাশিত: মে ২৮, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: মে ২৮, ২০২২ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক : সংরক্ষণজনিত ঝামেলার কারণে গরমের সময়ে ডিমের দাম কিছুটা কম থাকে কিন্তু এ বছর মুরগির খাদ্যের দাম বৃদ্ধিসহ নানা কারণে ডিমের দাম বেড়েছে বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যপণ্যের চড়া দামের তালিকা লম্বা হচ্ছে। এ তালিকায় যুক্ত হয়েছে অপেক্ষাকৃত স্বল্প মূল্যের প্রোটিনের উৎস ডিমও।
সাপ্তাহিক ছুটির দিন গতকাল শুক্রবার রাজধানীর কারওয়ান বাজার ঘুরে দেখা যায়, সপ্তাহের ব্যবধানে ডজনে ফার্মের মুরগির ডিমের দাম বেড়েছে ৫ টাকা। গত সপ্তাহে এক ডজন ফার্মের ডিম বিক্রি হয় ১১০-১১৫ টাকায়। একই ডিম গতকাল বিক্রি হয়েছে ১১৫-১২০ টাকায়। ডজন ১২০ টাকা ধরলে একটি ডিমের দাম পড়ছে ১০ টাকা। যদিও পাড়া-মহল্লায় দাম গিয়ে ঠেকেছে ১১ টাকায়।
শান্তিনগর বাজারে গিয়ে দেখা যায়, প্রতি হালি ফার্মের মুরগির ডিম বিক্রি হচ্ছে ৪৪ টাকায়। সেই হিসাবে প্রতি ডজনের দাম পড়ছে ১৩২ টাকা। কারওয়ান বাজারের চেয়ে প্রতি হালিতে ৪ টাকা বেশি নেয়া হচ্ছে কেন জানতে চাইলে দোকানি জুয়েল মিয়া বলেন, কারওয়ান বাজারের হিসাব এখানে কইরা লাভ নেই। আমরা খুচরা বেচি। আর ওরা পাইকারিতে প্রতিদিন হাজার হাজার ডিম বেচে। প্রতি হালি আমরা ৪৪ টাকায় বিক্রি করি, আর এক ডজন নিলে ১৩০ টাকা রাখি। তবে ফার্মের মুরগির ডিমের দাম বাড়লেও হাঁসের ডিমের দাম বাড়েনি। আগের মতোই প্রতি ডজন হাঁসের ডিম বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকায়। একই অবস্থা দেশি মুরগির ডিমের ক্ষেত্রেও। প্রতি ডজন দেশি মুরগির ডিম বিক্রি হচ্ছে ১৯০ টাকায়।
ডিমের দাম বাড়লেও ব্রয়লার মুরগির দাম কিছুটা কমেছে। প্রতি কেজি সাদা ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকায়, যা গত সপ্তাহেও ছিল ১৬৫-১৭০ টাকা। আর প্রতি কেজি লাল ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২৮০ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ২৯০ টাকা। গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে কেজিপ্রতি ৬৫০ টাকায়। খাসি বিক্রি হচ্ছে ৯০০ টাকায়। গত সপ্তাহে এ দুই ধরনের মাংস একই দামে বিক্রি হয়েছে। তবে গত সপ্তাহের মতো এ সপ্তাহেও প্রায় একই দামে বিক্রি হচ্ছে সবজি ও মাছ। কোনো সবজির দাম কমেনি, বরং দুয়েকটি সবজিতে দাম কিছুটা বেড়েছে। গত সপ্তাহে কাঁচা মরিচ বিক্রি হয়েছে ১০০ টাকা কেজি। এ সপ্তাহেও তা ১০০ টাকাতেই বিক্রি হচ্ছে।
কারওয়ান বাজারের খুচরা সবজি বিক্রেতা রাজীব বলেন, গত সপ্তাহের মতোই রয়েছে সবজির দাম। কমার কোনো লক্ষণ নেই। তিনি জানান, সবজির মধ্যে শসা ৪০, ঢ্যাঁড়স ৩০, উস্তে ৪০, পটোল ৫০, কচুর লতি ৬০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।
গত সপ্তাহের মতো এ সপ্তাহেও কারওয়ান বাজারে দেশি জাতের চিংড়ি ৭০০-৮০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। এর বাইরে ট্যাংরা ৫০০, বোয়াল ৭৫০-৮০০, কাঁচকি ৩৫০-৪০০ টাকা, আইড়, চিতল, বেলে মাছ আকারভেদে বিক্রি হচ্ছে ৭০০-৯০০ টাকা কেজিতে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়