লজিক প্রকল্প : রৌমারীতে সোলার পাম্প স্থাপন শুরু

আগের সংবাদ

চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় কী প্রস্তুতি : বিভিন্ন দেশের সঙ্গে অগ্রাধিকার ও মুক্তবাণিজ্য চুক্তি হবে > ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে

পরের সংবাদ

‘পোশাক আর বন্দুকই লাইসেন্স’ : ফার্মগেটে শিক্ষার্থীদের কাছে ক্ষমা চাইল পুলিশ

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৬, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৬, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক : ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ময়লার গাড়িচাপায় সহপাঠীর মৃত্যুর ঘটনার বিচার ও বাস ভাড়ায় হাফপাস এবং নিরাপদ সড়কের দাবিতে গতকাল বৃহস্পতিবারও রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে নামে শিক্ষার্থীরা। এমনকি তারা এ সময় নিজেরাই গাড়ির কাগজপত্র পরীক্ষা করে। এ সময় ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) একটি গাড়ি আটকে চালকের লাইসেন্স দেখতে চাইলে পুলিশ সদস্য বলেন, পোশাকই লাইসেন্স, বন্দুকই লাইসেন্স। কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে এক পুলিশ সদস্য শিক্ষার্থীদের কটূক্তিও করেন। যদিও পরে শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে ক্ষমা চাইতে হয় তাকে। রাজধানীর ফার্মগেটে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।
ওই দিনই বেলা সাড়ে ১১টা থেকে ফার্মগেটে সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করেন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। এ সময় বাসসহ কোনো গণপরিবহন চলাচল করতে দিচ্ছিলেন না তারা। ব্যক্তিগত গাড়ির চালকের লাইসেন্সসহ কাগজপত্র যাচাই করে দেখা হয়। কোনো অসঙ্গতি পেলে গাড়ি আটকে রাখা হয়। তবে অ্যাম্বুলেন্স চলাচলে কোনো বাধা দেননি শিক্ষার্থীরা।
এরই মধ্যে গতকাল দুপুরে ডিএমপির একটি গাড়ি ফার্মগেট মোড়ে এলে শিক্ষার্থীরা চালকের লাইসেন্স দেখতে চান। গাড়ির চালক তা দেখাতে পারেননি। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, এ সময় তিনি পুলিশের পোশাকই লাইসেন্স বলে দাবি করেন। পুলিশের আরেক সদস্য বলেন, বন্দুকই লাইসেন্স। কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে ইমরান নামে পুলিশের এক সদস্য শিক্ষার্থীদের কটূক্তি করেন। এতে শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়ে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়ে স্লোগান দিয়ে বলেন, পুলিশের লাইসেন্স নেই, বাংলাদেশ পুলিশ হায় হায়। একাধিক শিক্ষার্থী বলেন, আমরা যখন পুলিশের গাড়িচালকের কাছে লাইসেন্স চাই, উনি বলেছেন, আমার কাছে লাইসেন্স নেই। চালক বলেন, আমার পোশাকই আমার লাইসেন্স। দ্বিতীয়ত, তিনি এ সময় খারাপ ব্যবহারও করেন।
শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের একপর্যায়ে তেজগাঁও জোনের পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার রুবাইয়াত জামান ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে তার মধ্যস্থতায় একপর্যায়ে শিক্ষার্থীদের সামনে এসে কটূক্তিকারী ওই পুলিশ কর্মকর্তা দুঃখ প্রকাশ করেন। ইমরান নামের ওই পুলিশ কর্মকর্তা দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, ‘আপনাদের সঙ্গে বাজে ব্যবহার করছি, তার জন্য আমি দুঃখিত।’ তারপর পুলিশের গাড়ি যেতে দেন শিক্ষার্থীরা।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়