লজিক প্রকল্প : রৌমারীতে সোলার পাম্প স্থাপন শুরু

আগের সংবাদ

চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় কী প্রস্তুতি : বিভিন্ন দেশের সঙ্গে অগ্রাধিকার ও মুক্তবাণিজ্য চুক্তি হবে > ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে

পরের সংবাদ

এবার মেয়র পদও হারালেন জাহাঙ্গীর, দায়িত্বে আসাদুর : অভিযোগ তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৬, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৬, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক : টেন্ডারবাজি, অবৈধভাবে জায়গা দখল, ভুয়া বিল-ভাউচার তৈরিসহ নানা অভিযোগে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদ থেকে মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলমকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলো তদন্তে মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মুস্তাকিম বিল্লাহ ফারুকীর নেতৃত্বে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব অনুপম বড়–য়া ও উপসচিব মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম। গতকাল বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন। পরে মন্ত্রণালয় থেকে প্রজ্ঞাপন দিয়েও এসব কথা জানানো হয়। এদিকে সেখানকার ৪৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আসাদুর রহমান কিরনকে ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। প্রসঙ্গত, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে কটূক্তি ও মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে এর আগে আজীবনের জন্য আওয়ামী লীগ থেকেও বহিষ্কৃত হন মেয়র জাহাঙ্গীর।
স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে অনেকগুলো অভিযোগ দাখিল হয়েছে। সেগুলো সুষ্ঠু তদন্তের জন্য আমলে নেয়া হয়েছে। আইনের ধারা অনুযায়ী সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। আইন অনুযায়ী কোনো নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি, বিশেষ করে মেয়রের বিরুদ্ধে যদি কোনো অভিযোগ আসে এবং তা যদি তদন্তের মাধ্যমে নিষ্পত্তির জন্য আমলে নেয়া হয়, তাহলে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করার বাধ্যবাধকতা আছে। সে কারণে মেয়র জাহাঙ্গীরকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তিনি বলেন, তার (জাহাঙ্গীর) বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাকে অপসারণ করা হবে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তির কোনো অভিযোগ এসেছে কিনা, জানতে চাইলে মন্ত্রী তাজুল বলেন, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বাংলাদেশের কোনো নাগরিক, সে যে-ই হোক না কেন, কথা বলা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক ও ধৃষ্টতাপূর্ণ আচরণ। এটাকে একজন নাগরিক হিসেবে আমি ঘৃণা করি। স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে, যিনি বাংলাদেশকে স্বীকার করেন, তাহলে বঙ্গবন্ধুকে শ্রদ্ধা না করার কোনো কারণ নেই। যে বঙ্গবন্ধুকে শ্রদ্ধা করবে না, সে তো বাংলাদেশকেই স্বীকার করে না। জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে অভিযোগ দলের কাছে গিয়েছে এবং দলের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে, তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তিনি বলেন, আমাদের আইন অনুযায়ী আমাদের সিদ্ধান্ত নিতে হয়। মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ প্রতিষ্ঠান সিটি করপোরেশনসহ অন্যান্য স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান আছে। সেই প্রতিষ্ঠানে দায়িত্বপ্রাপ্ত কোনো ব্যক্তি দায়িত্ব পালনে যদি গর্হিত কাজ করে, সেসব ক্ষেত্রে আইন অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার ক্ষমতা আমাদের দেয়া আছে। সেই ক্ষমতাই

আমরা প্রয়োগ করছি। আইনে আমাদের যেসব অপশন দেয়া আছে, সেগুলো অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি।
মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা প্রজ্ঞাপনে যা বলা হয়েছে : মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে ভুয়া টেন্ডার, আরএফকিউ, বিভিন্ন পদে অযৌক্তিক লোকবল নিয়োগ, বিশ্ব এজতেমা উপলক্ষে ভুয়া বিল-ভাউচারের মাধ্যমে ও একই কাজ বিভিন্ন প্রকল্পে দেখিয়ে অর্থ আত্মসাৎ এবং প্রতি বছর হাটবাজার ইজারার অর্থ যথাযথভাবে নির্ধারিত খাতে জমা না রাখাসহ নানা অভিযোগ উত্থাপিত হয়েছে। ভূমি দখল ও ক্ষতিপূরণ ব্যতিত রাস্তা প্রশস্তকরণ সংক্রান্ত প্রাপ্ত অভিযোগটির বিষয়ে সিটি করপোরেশনের মতামত জানতে চাওয়া হলে অদ্যাবধি কোনো মতামত দেননি মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। এ অবস্থায় মন্ত্রণালয় বলছে, অপরাধগুলো ক্ষমতার অপব্যবহার, বিধিনিষেধ পরিপন্থি কার্যকলাপ, দুর্নীতি ও ইচ্ছাকৃত অপশাসনের শামিল, যা সিটি করপোরেশন আইনের ২০০৯ এর ধারা ১৩ (১)(ঘ) অনুযায়ী অপসারণযোগ্য অপরাধ এবং তদন্ত কার্যক্রম শুরুর মাধ্যমে আইনের ১৩ ধারামতে অপসারণের কাজ চলছে। স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) আইন, ২০০৯’ এর ১২ (১) ধারা অনুযায়ী, জাহাঙ্গীর আলমকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে এবং আইনের ১২(২) অনুযায়ী এই আদেশ জারির পরবর্তী ৩ দিনের মধ্যে সাময়িক বরখাস্ত হওয়া মেয়র প্যানেল মেয়রদের জ্যেষ্ঠ সদস্যের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করবেন।
তিন দিনের মধ্যে দায়িত্ব নিচ্ছেন নতুন মেয়র আসাদুর : আগামী রবিবার থেকে ৪৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আসাদুর রহমান কিরন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে কাজ শুরু করছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তিনি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব পাওয়ার চিঠি পেয়েছেন।
এর আগে মেয়র জাহাঙ্গীরকে সাময়িক বরখাস্ত করার আগে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে গাজীপুর সিটি করপোরেশনে মেয়র প্যানেল গঠন করে অফিস আদেশ জারি করা হয়। এতে বলা হয়েছে, স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) আইন ২০০৯ এর ধারা ২০ (২) এর বিধান মতে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলরদের সমন্বয়ে তিন সদস্যবিশিষ্ট মেয়র প্যানেল মনোনীত করা হলো। এতে জ্যেষ্ঠ সদস্য হিসেবে প্যানেলের প্রথম হয়েছেন ৪৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আসাদুর রহমান কিরন, ৫২ নম্বর ওয়ার্ডের মো. আব্দুল আলীম মোল্লা এবং সংরক্ষিত ১০ নম্বর ওয়ার্ডের মোসা. আয়েশা আক্তার।
স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম ভোরের কাগজকে বলেন, প্যানেল মেয়রদের মধ্য থেকে জ্যেষ্ঠ সদস্য হিসেবে আসাদুর রহমান কিরণ গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব নিচ্ছেন।
জানতে চাইলে আসাদুর রহমান কিরন ভোরের কাগজকে বলেন, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ভারপ্রাপ্ত মেয়র হওয়ার চিঠি পেয়েছি। আগামী রবিবার থেকে নতুন দায়িত্বে কাজ শুরু করবেন বলে জানান তিনি।
এর আগে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেন, সেখানে মেয়রদের প্যানেল গঠন করা হয়েছে। যিনি জ্যেষ্ঠতার বিচারে এক নম্বরে আছেন, তিনি মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। তাকেই দায়িত্ব হস্তান্তর করা হবে। আজকে আমরা বহিষ্কার আদেশ জারি করছি। আদেশ প্রাপ্তির তিন দিনের মধ্যে নতুন ভারপ্রাপ্ত মেয়র দায়িত্ব গ্রহণ করবেন। এর মধ্যেই ক্ষমতা হস্তান্তরের নির্দেশ দেয়া হচ্ছে। মেয়র জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের তদন্ত শেষ হতে কত দিন লাগতে পারে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, আমরা আমলে নিয়েছি। এখন তদন্ত শুরু হবে অনতিবিলম্বে। তদন্ত করতে মাঠ পর্যায়ে কতদিন লাগবে, সেটা এখনই বলা যাবে না। হয়তো বেশি সময় লাগতে পারে। আরো নতুন বিষয় যোগ হতে পারে। তার বিরুদ্ধে যে চার্জগুলো গঠন করা হবে, আমরা তদন্ত করে যেগুলো পাব, সেগুলোর বিষয়ে তাকে শোকজ করা হবে। আত্মপক্ষ সমর্থনের প্রত্যেক নাগরিকের সাংবিধানিকভাবে অধিকার আছে। সে অধিকার তিনিও ভোগ করতে পারবেন।
প্রসঙ্গত, ১৯ নভেম্বর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে জাহাঙ্গীর আলমকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। তার বিরুদ্ধে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ আনা হয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে জাহাঙ্গীরের কিছু বিতর্কিত মন্তব্যসংবলিত ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরই ৩ অক্টোবর জাহাঙ্গীর আলমকে শোকজ করা হয়। জাহাঙ্গীর আলম গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। গতকালই মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে মো. আতাউল্লাহ মণ্ডলকে। তিনি মহানগর কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। জাহাঙ্গীর আলমকে দল থেকে বহিষ্কারের পরপরই তাকে মেয়র পদ থেকে বহিষ্কারের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হচ্ছিল। ১৯ নভেম্বরের বৈঠক শেষে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছিলেন, তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার বিষয় বিবেচিত হচ্ছে। এ বিষয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়কে বলা হয়েছে। গত সেপ্টেম্বর মাসে গোপনে ধারণ করা মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের কথোপকথনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জেলার কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য করা হয়েছে বলে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা অভিযোগ করেন। এই পরিপ্রেক্ষিতে ১৯ নভেম্বর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে জাহাঙ্গীর আলমকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়